ভিতরে

শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজও জিততে চায় বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা

টি-টুয়েন্টি সিরিজ শেষে এবার ওয়ানডে লড়াইয়ে নামছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড ও শ্রীলংকা। আগামীকাল থেকে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু করছে দু’দল। ওয়ানডে সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামছে ইংল্যান্ড। আর টি-টুয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশের ক্ষত মুছতে চায় শ্রীলংকা। চেষ্টার-লি-স্ট্রিটে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় শুরু হবে প্রথম ওয়ানডে।
টি-টুয়েন্টি সিরিজ দিয়ে লড়াই শুরু করেছিলো ইংল্যান্ড ও শ্রীলংকা। সিরিজে শ্রীলংকাকে হোয়াইটওয়াশ করে ইংলিশরা। তিন ম্যাচে লড়াই করার সুযোগই পায়নি লংকানরা। ৮ ও ৫ উইকেটে এবং ৮৯ রানে তিনটি টি-টুয়েন্টি জিতে ইংল্যান্ড।
টি-টুয়েন্টি সিরিজ জিতে ফুরফুরা মেজাজে রয়েছে ইয়োইন মরগানের দল। যা ওয়ানডে সিরিজ জয়ে বড় টনিক হিসেবে কাজ করবে বলে মনে করেন দলের অধিনায়ক মরগান। তিনি বলেন, ‘টি-টুয়েন্টি সিরিজে দারুন পারফরমেন্স করেছে ছেলেরা। আশা করছি, টি-টুয়েন্টি সিরিজের পারফরমেন্স ওয়ানডেতেও ধরে রাখতে পারবে তারা। আমাদের লক্ষ্য সিরিজ জয়। সিরিজ জিততে তিন বিভাগেই ভালো খেলতে হবে আমাদের।’
অন্য দিকে টি-টুয়েন্টি সিরিজ হারের ক্ষত ভুলতে ওয়ানডেতে জয় ছাড়াই কিছুই ভাবছেন না শ্রীলংকার অধিনায়ক কুশল পেরেরা। তিনি বলেন, ‘টি-টুয়েন্টিতে আমরা ভালো খেলতে পারিনি। তবে সেই ক্ষত ভুলে যেতে হলে, ওয়ানডেতে আমাদের ভালো করতে হবে। সিরিজ জিততে হবে। প্রথম ওয়ানডে থেকেই সিরিজে নিয়ন্ত্রন নিতে হবে। জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করতে হবে।’
সর্বশেষ দ্বিপাক্ষীক দু’টি সিরিজেই জয় ছিলো ইংল্যান্ডের। ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে ও ২০১৮ সালে শ্রীলংকার মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ অনুষ্ঠিত হয়েছিলো।
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ওয়ানডে লড়াইয়ে সমান-সমান জয় ইংল্যান্ড ও শ্রীলংকার। ৭৫ ম্যাচে লড়াই করে ৩৬টি করে ম্যাচ জিতেছে দু’দল। ১টি টাই ও ২টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

কোপায় এই মুহূর্তে নেইমারই সেরা

টোকিও অলিম্পিকে খেলছেন না সেরেনা