ভিতরে

আয়বর্ধক প্রকল্পে চসিকের সক্ষমতা পুনরুদ্ধার করা হবে : মেয়র

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নগরবাসীর কাছ থেকে কর নিয়ে চলে। এই নির্দিষ্ট আয় দিয়ে সেবার পরিধি বাড়ানো সম্ভব নয়। তাই স্বনির্ভর হতে হবে। 
মেয়র বলেন, এ জন্য প্রয়োজন আয়বর্ধক প্রকল্প বাস্তবায়ন করা। চসিকের বেশ কিছু অব্যবহৃত ভূ-সম্পত্তি রয়েছে। এগুলোতে অগ্রাধিকারভিত্তিক আয়বর্ধক প্রকল্প বাস্তবায়ন করে চসিকের সক্ষমতা পুনরুদ্ধার করা হবে।
তিনি গতকাল রোববার বিকেলে বেপারিপাড়ায় আগ্রাবাদ কমার্শিয়াল শপিং কমপ্লেক্স ও ১১ নং দক্ষিণ কাট্টলীর ফইল্লাতলী কিচেন মার্কেট উদ্বোধনকালে এ কথা বলেন। 
তিনি আরো বলেন, নগরীতে পর্যায়ক্রমে আরো কিচেন মার্কেট গড়ে তোলা হবে। আজ যে দু’টি বহুতল কিচেন মার্কেট ও শপিং কমপ্লেক্স উদ্বোধন হলো এগুলো নির্মাণে মোট প্রকল্প ব্যয়ের ৯০ শতাংশ যোগান দেয় বিশ্বব্যাংক বিএমডিএফ-এর মাধ্যমে এবং বাকি ১০ শতাংশ চসিকের নিজস্ব তহবিল থেকে। এভাবে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ কাঁচাবাজারগুলোকে বহুতল কিচেন মার্কেটে রূপান্তর করা হবে। 
তিনি আরো জানান, বহুতল কিচেন মার্কেটে বাণিজ্যিক ফ্ল্যাট বরাদ্দ ও আবাসন সংস্থান ব্যবস্থা থাকবে। অর্থাৎ এ সকল মার্কেট একের মধ্যে দুই লক্ষ্য পূরণ করবে – বাজার বিপনন ও আবাসন।
১১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অধ্যাপক মোহাম্মদ ইসমাইলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন  বিএমডিএফ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ হাসিনুর রহমান ও চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম। 
অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্যানেল মেয়র আফরোজা কালাম, কাউন্সিলর শেখ জাফরুল হায়দার সবুজ, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, বিশিষ্ট রাজনীতিক এরশাদুল আমিন চৌধুরী ও আসলাম হোসেন সওদাগর, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ঝুলন কুমার দাশ, নির্বাহী প্রকৌশলী বিপ্লব দাশ, জসিম উদ্দিন, বিএমডিএফ’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো. কামরুজ্জামান প্রমুখ।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

সিলেট বিভাগে একদিনে করোনায় আক্রান্ত আড়াই গুণ বেড়েছে

নড়াইল পৌরসভার বাজেট ঘোষণা