ভিতরে

নিয়মিত কেমো থেরাপি নিতে হবে পেলেকে

প্রায় একমাস হাসাপাতালে কাটানোর পর গতকাল  ছাড়া পেয়েছেন ব্রাজিলের ফুটবল কিংবদন্তী পেলে। বৃহদান্ত্রের টিউমার অস্ত্রোপাচারের মাধ্যমে অপসারণ করা হলেও নিয়মিত কোমথেরাপি গ্রহন করতে হবে ৮০ বছর বয়সি এই ফুটবল লিজেন্ডকে।
নিয়মিত পরীক্ষা করাতে গিয়ে দেহে টিউমার শনাক্ত হওয়ায় ৩১ আগস্ট সাওপাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি হন পেলে। ৪ সেপ্টেম্বর তার দেহে অস্ত্রোপচার করা হয়। বর্তমানে অবশ্য তার অবস্থা স্থতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ‘ক্যান্সার’ শব্দটি ব্যবহার করতে অনীহা প্রকাশ করলেও তাদের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে নিয়মিত কেমোথেরাপি নিতে হবে পেলেকে। যদিও ক্যান্সার আক্রান্ত রোগিরাই এই চিকিৎসা গ্রহন করেন।
নিজের ফেসবুক একাউন্টে পোস্ট করা এক বিবৃতিতে পেলে বলেন,‘ বাড়ীতে ফিরতে পেরে আমি খুশি। আলবার্ট আইনস্টাইন হাসাপাতালের গোটা দলকে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই। যারা আমাকে চমৎকার অভ্যর্থনা জানিয়েছিল এবং আমার থাকার জন্য মনোরম পরিবেশ তৈরি করে দিয়েছিল। আপনাদের সবাইকেও ধন্যবাদ জানাচ্ছি, যারা দূর থেকেও ভালবাসার বার্তা পাঠিয়ে আমার জীবনকে পুর্ন করে দিয়েছেন।’
সর্বকালের সেরা ফুটবলার হিসেবে বিবেচিত পেলে সাম্প্রতিক সময়ে নানান শারিরিক জটিলতায় ভুগছেন এবং বেশ কয়েকবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বছরের পর বছর ধরে নিতম্বের সমস্যায় ভুগছেন এবং সাহায্য ছাড়া চলাফেরা করতে পারেন না তিনি।
ব্রাজিলের হয়ে ১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপ জেতা পেলের ৯২ ম্যাচে ৭৭ গোল এখনও দেশটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতা। চারটি বিশ্বকাপে গোল করা মাত্র চারজন খেলোয়াড়ের একজন তিনি।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

কনফারেন্স লিগ: কেনের হ্যাটট্রিকের বড় জয় পেল স্পার্সরা

আবারও পিসিবিতে নতুন ভূমিকায় যুক্ত হচ্ছেন ইউনিস