ভিতরে

বাংলাদেশ-ফিলিপিন্স দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সূবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে ম্যানিলায় সেমিনার অনুষ্ঠিত  

বাংলাদেশ ও ফিলিপাইনের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক স্থাপনের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ম্যানিলাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ও ফিলিপিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) ফিলিপিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের এশিয়ান সেন্টারের জিটি-টয়োটা অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ-ফিলিপিন্স সম্পর্কের ৫০বছর: অর্জন, চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনাসমূহ’ শীর্ষক এই সেমিনারের শুরুতেই দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভিডিওবার্তা প্রদর্শিত হয়।
আজ শুক্রবার ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সংবাদ জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত এই সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ক্যাম্পাস উপাচার্য অধ্যাপক ফিদেল নেমেঞ্জো। ১৯৭৩ সালের অক্টোবরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যানিলায় সংক্ষিপ্ত সফরের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই সফরের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের শক্ত ভিত্তি স্থাপিত হয়েছিল। 
ফিদেল নেমেঞ্জো বলেন, দক্ষিণ এশিয়া ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের দুটি দেশ হিসেবে সামাজিক, অর্থনৈতিক, নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে ফিলিপিন্স এবং বাংলাদেশের অভিন্ন স্বার্থ রয়েছে। দু’দেশের মধ্যকার পারস্পারিক যোগাযোগ বৃদ্ধির মধ্য দিয়ে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও গভীর হবে বলেও তিনি আশা ব্যক্ত করেন। 
ম্যানিলায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এফ এম বোরহান উদ্দিন বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের চলমান উন্নয়ন অভিযাত্রা, ভবিষ্যৎ রূপকল্প ও অনন্য সাফল্যগুলো তুলে ধরেন।  
বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের অব্যবহিত পরেই ফিলিপিন্স সরকার ও জনগণের দেয়া সমর্থনের কথাও রাষ্ট্রদূত কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বাংলাদেশ-ফিলিপিন্সের মধ্যে বিশেষ করে কৃষি, ঔষধ, শিক্ষা, আইসিটি, ট্যুরিজম এবং জনগণের সঙ্গে জনগণের যোগাযোগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বহুমুখী সহযোগিতা সম্প্রসারণের বিষয়ে আলোকপাত করেন। সেই সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে করনীয় সম্পর্কে তাঁর অভিমত তুলে ধরেন। 
সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এশিয়ান সেন্টারের ডিন অধ্যাপক হেনেলিতো সেভেলিয়া। 
এই সেমিনারে ফিলিপিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ডিলিমান ক্যাম্পাস’র উপাচার্য অধ্যাপক ফিদেল নেমেঞ্জো, একাডেমিক বিষয়ক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মা তেরেসা পায়ঙ্গায়ং, এশিয়ান সেন্টারের ডিন অধ্যাপক হেনেলিতো সেভেলিয়া,  ফিলিপাইন পররাষ্ট্র দপ্তরের এশিয়া ও প্যাসিফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান মারিয়া আনা লিলিয়া, ডিপ্লোম্যাটিক কোরের ডিন ও কূটনীতিকবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিষয়ের অনুষদবৃন্দ, ছাত্র-ছাত্রী এবং মিডিয়াকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন। 
হাইব্রিড প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত এই সেমিনারে একই সাথে জুম মাধ্যমে শতাধিক অতিথি সংযুক্ত ছিলেন।
প্রবন্ধ উপস্থাপন শেষে প্যানেল আলোচনায় বক্তারা উপস্থিত অতিথিদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

বর্তমান সরকার গারো, চাকমা, মারমা, বাঙালিসহ সকলের সমান উন্নয়নে কাজ করছে : কৃষিমন্ত্রী

দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত ১৯ জন