ভিতরে

শেরপুরে ঝিনাইগাতিতে প্রণোদনা পেলেন চার হাজার একশ’ জন কৃষক

 জেলার ঝিনাইগাতি উপজেলায় আজ  রবি মৌসুমে কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় গম, ভুট্টা, সরিষা ও শীতকালীন পেঁয়াজসহ বিভিন্ন ফসলের বীজ এবং রাসায়নিক সার পেয়েছেন চার হাজার একশ’ জন কৃষক। 
আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা কৃষি প্রশিক্ষণ সেন্টারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রণোদনা বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন ঝিনাইগাতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএমএ ওয়ারেজ নাইম। 
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপজেলা কার্যালয় আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আশরাফুল কবিরের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শ্রী বিশ্ব জিৎ রায়, উপেজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন দিলদার, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা নাদিয়া আখতার প্রমুখ।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপজেলা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, একজন কৃষক একবিঘা জমিতে চাষের জন্য প্রয়োজনীয় বীজ ও সার পাচ্ছেন। কৃষি মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত বাজেট কৃষি পুনর্বাসন সহায়তা খাত থেকে এ প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে।
ঝিনাইগাতি উপজেলায় ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে প্রণোদনার কর্মসূচির আওতায় রবি মৌসুমে গম, ভুট্টা, সরিষা, সূর্যমুখী, চিনাবাদাম, সয়াবিন, শীতকালীন পেঁয়াজ, মুগ, মসুর ও খেসারির আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে চারহাজার একশ’জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক বিনা মূল্যে বীজ ও সার পাবেন। এরমধ্যে তিনহাজার জনকে জনপ্রতি এককেজি করে সরিষা বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি এবং এমওপি সার; নয়শ’ জনকে ২০ কেজি করে গম বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি এবং এমওপি সার; ১৮০ জনকে দুইকেজি করে ভুট্টা বীজ, ২০ কেজি করে ডিএপি ও ১০ কেজি করে এমওপি সার; ২০ জনকে এককেজি করে শীতকালীন পেঁয়াজ বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি এবং এমওপি সার দেওয়া হয়েছে।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

মেয়ের নাম জানালেন আলিয়া?

লা লিগা: মৌসুমের প্রথম পরাজয়ের স্বাদ পেল রিয়াল