ভিতরে

বিজনেস ডিরেক্টর অব দ্য ইয়ার-পুরস্কার পেলেন নগদের সিবিও

দেশের কর্পোরেট খাতে অসামান্য অবদান রাখায় ‘বিজনেস ডিরেক্টর অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার পেয়েছেন ‘নগদ’-এর চিফ বিজনেস অফিসার শেখ আমিনুর রহমান।
বাংলাদেশী ব্যবসায়ী নেতাদের অর্জনকে স্বীকৃতি ও উৎসাহ প্রদান করার প্রয়াসে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম (বিবিএফ) আয়োজিত ‘বাংলাদেশ সি-স্যুট অ্যাওয়ার্ডস ২০২২’-শীর্ষক অনুষ্ঠানে আমিনুরকে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়।
সম্প্রতি রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে দেশের ভবিষ্যত উন্নয়নকে সমৃদ্ধ করার লক্ষে আয়োজন করা হয় বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ফ্ল্যাগশিপ ইভেন্টের ষষ্ঠতম আসর ‘লিডারশিপ সামিট-২০২২’। ফ্ল্যাগশিপ ইভেন্টের পর ‘সি-স্যুট অ্যাওয়ার্ডস ২০২২’ আয়োজনের মধ্য দিয়ে ১৬টি ক্যাটাগরিতে মোট ১৬ জন করপোরেট লিডারকে এ সম্মাননা প্রদান করে ব্র্যান্ড ফোরাম। 
‘নগদ’-এর চিফ বিজনেস অফিসার শেখ আমিনুর রহমান ‘বিজনেস ডিরেক্টর অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার অর্জনের পেছনে ছিল তাঁর গতিশীল ও অসামান্য নেতৃত্বের গুণাবলী। বর্তমানে দেশের সেরা মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’-এর দৈনিক হাজার কোটি টাকার লেনদেন। ছয় কোটিরও  বেশি গ্রাহকভিত্তি তৈরি ও বিজনেস গ্রোথে বিশেষ অবদান রেখেছেন তিনি। এ ছাড়া কর্পোরেট এক্সিকিউটিভ ক্লাব লিমিটেড নামের একটি প্লাটফর্মের প্রতিষ্ঠাতা তিনি। ইন্ডাস্ট্রির এফএমসিজি, আইটি, টেলিকম, ফার্মা ও ব্যাংকিংসহ এমন সব কমিউনিটির নেতাদের একত্রীকরণে কাজ করে যাচ্ছেন ‘নগদ’-এর সিবিও শেখ আমিনুর রহমান। নতুন প্রজন্মের মধ্যে ক্যারিয়ারের সাথে সাথে নেতৃত্বের গুণাবলী তৈরি করতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যারিয়ার কোচিং, কর্মশালা, সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বিজনেস সম্পর্কিত লেকচার ও দিক নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। 
‘সি-স্যুট অ্যাওয়ার্ডস ২০২২’-এ বিজনেস ডিরেক্টর অব দ্য ইয়ার অর্জন নিয়ে শেখ আমিনুর রহমান বলেন, ‘পুরস্কার প্রাপ্তি সবার জন্য একটি আনন্দের। আমি এই পুরস্কার পেয়ে সম্মানিত বোধ করছি। আমি এখনো আমার কাজের মাধ্যমে আমার বিভিন্ন পর্যায়ের সহকর্মীর কাছ থেকে বিভিন্ন বিষয় শিখছি। এ ধরনের পুরস্কার সামগ্রিক চেষ্টাগুলোকে বেগবান করবে বলে বিশ্বাস করি।’
ইতোপূর্বে মানি ২.০; আউটস্ট্যান্ডিং লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড, এলএফবি লিডারশিপ এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড, টেলিনরসহ বেশক’টি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছেন শেখ আমিনুর রহমান।
‘সি-স্যুট অ্যাওয়ার্ডস ২০২২’-অনুষ্ঠানটি প্রযোজনায় ছিল ইউনাইটেড গ্রুপ। এই আয়োজনে সহযোগিতায় ছিল টিম গ্রুপ, দ্য ডেইলি স্টার ও ঢাকা মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই)।
বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের এই অ্যাওয়ার্ড শো’তে দেশের প্রায় ৩৫০ জন ব্যবসায়ী নেতা, বিশেষজ্ঞ ও কর্পোরেট ব্যক্তিত্ব অংশ নেন।
আয়োজক প্রতিষ্ঠানের তথ্যানুযায়ী, অ্যাওয়ার্ড আয়োজনের প্রথম সংস্করণে ৩০টি কোম্পানি থেকে ১০০ জনের অধিক নমিনেশন পাওয়া যায়। বিশেষজ্ঞ জুরিবোর্ডের পর্যালোচনায় সেখান থেকে বাছাই করা হয়। তারপর ১৬টি ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে ১৬ জন এক্সিকিউটিভকে এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

পুঁজিবাজারের উন্নয়নে অটোমেশনকে আরও গুরুত্ব দিতে হবে : আইএমএফ

খাদ্য সঙ্কট নিরসনে বঙ্গবন্ধুর সবুজ বিপ্লব বাস্তবায়নের আহ্বান