ভিতরে

লা লিগা: পিকের বিদায়ী ম্যাচে জয় উপহার দিল বার্সেলোনা

 জেরার্ড পিকের বিদায়ী ম্যাচে ক্যাম্প ন্যুতে আলেমেরিয়াকে ২-০ গোলে পরাজিত করেছে বার্সেলোনা। যদিও ম্যাচে বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া হয়েছে কাতালান জায়ান্টদের। 
এই ম্যাচটি ছিল ৩৫ বছর বয়সী অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার পিকের ঘরের মাঠে শেষ ম্যাচ। বার্সেলোনার জার্সি গায়ে ৬১৬ ম্যাচ খেলা পিকে মঙ্গলবার ওসাসুনার বিপক্ষে ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচটি খেলবেন। 
ওসমানে ডেম্বেলে ও ফ্রেংকি ডি জংয়ের গোলে বার্সেলোনার জয় নিশ্চিত হয়। এই জয়ে রিয়াল মাদ্রিদের থেকে দুই পয়েন্ট এগিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছে জাভির দল। 
কাল নিয়মিত অধিনায়ক সার্জিও বাসকুয়েটসের পরিবর্তে অধিনায়কের আর্মব্যান্ড পড়ে মাঠে নেমেছিলেন পিকে। যতবারই বল স্পর্শ করেছে ততবারই সমর্থকদের উষ্ণ অভিনন্দন পেয়েছেন। শেষবারের মত ক্যাম্প ন্যুতে এই লিজেন্ডকে সম্মান জানাতে কোন ভুল করেনি দর্শকরা। ম্যাচ শেষে কান্না ভেজা কন্ঠে পিকে বলেছেন, ‘অনেকসময় চলে যাবার মধ্যেও ভালবাসা থাকে। আমি নিশ্চিত ভবিষ্যতে এখানে আমি ফিরে আসবো। এটা একেবারে চলে যাওয়া নয়। ১৭ বছর পর আমি ক্লাব ছেড়ে চলে যাচ্ছি। আমার দাদা আমাকে ক্লাব সদস্য বানিয়েছিলেন। আমি এখানে জন্ম নিয়েছি, এখানেই মৃত্যুবরণ করতে চাই।’
ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে থেকে কাতালান রাজধানীতে আসার পর ১৪ বছওে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে পিকে ৩০টি শিরোপা জয় করেছেন। 
কাল তিনজন লেফট-ব্যাক নিয়ে মূল একাদশ সাজিয়েছিলেন জাভি। জোর্দি আলবা তার স্বাভাবিক পজিশনে খেলেছেন। আলেহান্দ্রো বাল্ডে ছিলেন রাইট-ব্যাকে ও মার্কোস আলোনসো খেলেছেন সেন্টার ব্যাক হিসেবে। বার্সেলোনা তাদের ইনজুরি আক্রান্ত ডিফেন্ডারদেও ফেরার অপেক্ষায় থাকাও পরিবর্তিত এই লাইন-আপ নিয়ে মাঠে নামতে বাধ্য হয়েছে জাভি। 
ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যাবার সুযোগ হাতছাড়া করে বার্সেলোনা। ৭ মিনিটে কেইকির হ্যান্ডবলে প্রাপ্ত পেনাল্টি থেকে লিওয়ানদোস্কি গোল করতে পারেননি। তার শটটি পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়। সমর্থকরা চেয়েছিল পিকে পেনাল্টি শটটি নিবেন, কিন্তু পিকের কাছে লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতাকেই যোগ্যত মনে হয়েছে। লারগি রামাজানিকে দারুনভাবে রুখে দিয়ে মার্ক-আন্দ্রে টার স্টেগার বার্সেলোনাকে পিছিয়ে পড়া থেকে রক্ষা করেন। ফেরান তোরেসের একটি শট লাইনের উপর থেকে ক্লিয়ার করেন গঞ্জালো মেলেরো। 
দ্বিতীয়ার্ধেও শুরুতে রাইট উইং থেকে দারুন গোলে বার্সেলোনাকে এগিয়ে দেন ডেম্বেলে। পরের মিনিটেই ডেম্বেলে আরো একটি সহজ সুযোগ নষ্ট করেন। বদলী বেঞ্চ থেকে উঠে আসা আনসু ফাতি ৬২ মিনিটে আলবার ক্রস থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন, কিন্তু ফিরতি বলে ডি জং কোন ভুল করেননি। 
ম্যাচের শেষ ভাগে পিকে যখন মাঠ ছাড়েন তখন সমর্থকরা দাঁড়িয়ে প্রিয় তারকাকে বিদায় জানিয়েছেন। এ সময় মাঠে তার সব সতীর্থরাই আবেগপ্রবন হয়ে পড়েছিলেন। ম্যাচ শেষে জাভি বলেছেন, ‘এটা আমাদের জন্য ঐতিহাসিক একটি রাত ছিল, বিশেষ করে জেরার্ডের জন্য। আমরা একসাথে অনেক সুন্দর সময় কাটিয়েছি। সম্ভাব্য সেরা উপায়ে আমরা তাকে বিদায় জানাতে চেয়েছিলাম। আমি ইতোমধ্যেই বলেছি সে বার্সার একজন কিংবদন্তী খেলোয়াড়, আমরা তার কাছে কৃতজ্ঞ।’

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

নেদারল্যান্ডসের কাছে হেরে বিদায় নিল দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রিমিয়ার লিগ: ফিরেই হালান্ডের গোল, দারুন জয়ে শীর্ষে ম্যানচেস্টার সিটি