ভিতরে

দায় নিজ কাঁধে নিলেন প্রোটিয়া কোচ

 নেদারল্যান্ডসের কাছে হেরে টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপ থেকে ছিটকে পড়ার জন্য কেবল নিজেদেরকেই দায়ী করা যায় বলে মন্তব্য করেছেন দক্ষিন আফ্রিকার কোচ মার্ক বাউচার। 
আজ এডিলেডে অনুষ্ঠিত গ্রুপের শেষ  ম্যাচে বিস্ময়করভাবে ডাচদের দক্ষিণ আফ্রিকার হেরে যাওয়ায় গ্রুপ ২ থেকে  সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যায় ভারতের।   নেদারল্যান্ডসের  কাছে  ১৩ রানে হেরে যায় প্রোটিয়ারা। টুর্নামেন্টে নতুন এক বিষ্ময়। প্রোটিয়াদেরকে টুর্নামেন্টের শিরোপা ফেভারিট হিসেবে ভাবা হলেও ডাচদের কাছে এই পরাজয়ে এখন ঘরের পথ ধরতে হবে তাদের। ফলে সাদা বলের বিশ^কাপে জয়ের অপেক্ষা আরো বেড়ে গেল দক্ষিন আফ্রিকার।
ম্যাচ শেষে চরম হতাশ বাউচার বলেন, ‘ম্যাচের শুরু দেখলেই বুঝা যায় আমরা দুর্বল ছিলাম। তবে  ভালো একটি দল পেয়েছি। আমাদের বিশ^াস নিজেদের দিনে আমরা যে কোন দলকেই হারাতে পারি। এ করনেই বলতে চাই টুর্নামেন্ট থেকে এই অবস্থায় বিদায় নেয়াটা দলের জন্য হতাশার। কারণ দল হিসেবে তারা আরো ভালো কিছু আশা করে। 
আমরা নিজেদেরকেই দোষারোপ করছি, তবে আমার মনে হয় আমাদের টি-টোয়েন্টি দলটি ভালো অবস্থানে আছে।’ 
নেদারল্যান্ডসের কাছে পরাজয়কে  নিজের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে হার হিসেবে অভিহিত করেছেন ৪৫ বছর বয়সি বাউচার। তিনি বলেন,‘ ম্যাচের  শুরুর দিকে তাকালেই বুঝতে পারবেন আমরা দুর্বল ছিলাম।’
ম্যাচ সেরা কলিন অ্যাকারম্যানের অপরাজিত ৪১ রানে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে  ৪ উইকেটে  ১৫৮ রান সংগ্রহ করে নেদারল্যান্ডস। জবাবে ডাচ ফাস্ট বোলার ব্রেন্ডন গ্লোভারের নজর কাড়া পারফর্মেন্সের সামনে খেই হারিয়ে ফেলে দক্ষিন আফ্রিকা। ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৫ রানে গুটিয়ে যায় প্রোটয়িারা।  ২ ওভার বল করে ৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার করেন ব্রেন্ডন। 
প্রোটিয়া অধিনায়ক তেম্বা বাভুমা বলেন, ‘ এটি হজম করা কঠিন। একটি দল হিসেবে সেমিফাইনাল  খেলতে পারব বলে নিজেদের মধ্যে আস্থা ও বিশ^াস ছিল। গুরুত্বপুর্ন মুহুর্তে আমরা উইকেট হারিয়েছি। তারা আমাদের চেয়ে ভালো ফিল্ডিং করেছে।’
বাউচার বলেন,‘ ম্যাচে আমাদের পরিকল্পনা  কাজে লাগাতে পারিনি।  ডাচরা আমাদের পরাস্ত করেছে। আমরা তাদের উপর যতটুকু চাপ তৈরি করতে পেরেছিলাম তার চেয়ে বেশী চাপ আমাদের উপর সৃৃস্টি করেছে।’
  -ডাচ আনন্দ-      
প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে  দারুন সূচনা এনে দেন নেদারল্যান্ডসের দুই ওপেনার স্টেফান মাইবার্গ ও ম্যাক্স ও’দাউদ। ৫১ বল খেলে ৫৮ রান যোগ করেন তারা। মাঝপথে পথ হারিয়ে ফেলা ডাচ দলকে ফের রাস্তা দেখান অ্যাকারম্যান। মিডল-অর্ডারে তার ৩টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজানো ২৬ বলে অপরাজিত ৪১ রান নেদারল্যান্ডসকে  লড়াই করার পুঁিজ এনে দেয়  । শেষ দুই ওভারে অধিনায়ক স্কট এডওয়ার্ডস সংগ্রহ করেন ৩১ রান। 
ম্যাচ জয়ের পর   ডাচ অধিনায়ক  এডওয়ার্ডস বলেন,‘ আমি ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। বিশ^কাপে এটি নেদারল্যান্ডসের জন্য আরেকটি আপসেট।’
ম্যাচ সেরা অ্যাকারম্যান যোগ করেন,‘ দুর্দান্ত লাগছে। আমরা সত্যিই এই জয়ের যোগ্য। ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করেছে।’

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

পাকিস্তানের কাছে হেরে সেমিফাইনালের স্বপ্ন ভঙ্গ বাংলাদেশের

ফল বিবেচনায় এটিই বাংলাদেশের সেরা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ : সাকিব