ভিতরে

চীন সফরে বেইজিং পৌঁছেছেন জার্মান চ্যান্সেলর 

 চীনের সাথে গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করার জন্য জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস শুক্রবার বেইজিং পৌঁছেছেন। 
তবে শি জিনপিংয়ের অধীনে চীন আরো স্বৈরাচারী হয়ে উঠছে, এমন একটি দেশের ওপর তার দেশের ব্যাপক নির্ভরতা নিয়ে ওলাফ শলৎস সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছেন।
শলৎস হলেন প্রথম জি-৭ নেতা, যিনি করোনভাইরাস মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে চীন সফর করছেন। যা একঘরে হয়ে থাকা বিশ্বের দুই নম্বর অর্থনীতির দেশটিকে আরো প্ররোচিত করেছে। 
একদিনের এই সফরে তিনি প্রেসিডেন্ট শি এবং প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং ও শীর্ষ কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করবেন।
তবে শি তার ক্ষমতা আরো জোরদার এবং তাইওয়ান থেকে শুরু করে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ পর্যন্ত বিভিন্ন ইস্যুতে পশ্চিমা ও বেইজিংয়ের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধির পরে এই সফরটি বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। 
চীনের উপর জার্মান শিল্পের ভারী নির্ভরতাও নতুনভাবে যাচাই-বাছাইয়ের মুখোমুখি হচ্ছে। কারণ রাশিয়ান জ্বালানি আমদানির উপর বার্লিনের অতিরিক্ত নির্ভরতা যা মস্কো জ্বালানি সরবরাহ বন্ধ করে দেয়ায়  সময় প্রকাশ পেয়েছে।
বিরোধী আইন প্রণেতা নরবার্ট রোয়েটজেন রাইনিশে পোস্ট পত্রিকাকে বলেছেন, ‘আমাদের অর্থনীতির নির্ভরশীলতার জন্য এবং আমাদের কাজ করার ক্ষমতার জন্য এর অর্থ যাই হোক না কেন, আমরা চীনের সাথে ব্যবসা চালিয়ে যেতে চাই।’ এতে এখন শলৎস এর দৃষ্টিভঙ্গি  প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। 
চীন সম্পর্কে উদ্বেগ জার্মান ক্ষমতাসীন জোটের মধ্যে থেকেও এসেছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক বলেছেন, রাশিয়ার সাথে অতীতের ভুলের পুনরাবৃত্তি ঘটনা উচিত নয়।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

রাশিয়ার সার রপ্তানি বিষয়ে ‘অগ্রগতি’ লক্ষ্য করা যাচ্ছে : জাতিসংঘ

যশোর শিক্ষাবোর্ডে এবার ১ লাখ ৭০৯ জন এইচএসসি পরীক্ষার্থী