ভিতরে

পাবনায় হত্যা মামলায় ২১ জনের যাবজ্জীবন

 জেলায় আব্দুস সালাম নামে এক কৃষককে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ২১ আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত।
রায়ে প্রত্যেক আসামিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়।
সোমবার দুপুরে পাবনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-২ এর বিচারক ইসরাত জাহান মুন্নী এই রায় ঘোষণা করেন।
সাজাপ্রাপ্তরা আসামীরা হচ্ছে- শাহজাহান মোল্লা, মিনহাজ, নবী মোল্লা, সুলতান মাহমুদ, মোক্তার, বাছেদ শেখ, আইয়ুব খাঁ, আসলাম, লতিফ মোল্লা, ছোবাই মোল্লা, কালাম,  মহির মোল্লা, মোহাম্মদ আলী মোল্লা, রেজাউল মোল্লা, বাবু মোল্লা, মোকছেদ মোল্লা ,বারেক মোল্লা, করিম মোল্লা, খোকন, রফিক এবং বাবলু উদ্দিন।
এদের মধ্যে বারেক, মিনহাজ, বাবলু, বাছেদ শেখ, লতিফ মোল্লা ও ছোবাই মোল্লা পলাতক রয়েছে।
তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ১৫ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়। একই সাথে বিচারক অস্ত্র মামলায় সুলতান মাহমুদকে ১০ বছর এবং নবী মোল্লাকে ৭ বছরের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছে।
নিহত আব্দুস সালামের ভাই সহকারী অধ্যাপক ইসমাইল হোসেন বলেন, এই মামলার রায়ে আমরা সন্তুষ্ট।  
মামলার নথি সূত্রে জানাগেছে, ১৯৯৮ সালের ৭ নভেম্বর পাবনা সদর উপজেলার চরতারাপুর ইউনিয়নের ভাদুরী ডাঙ্গী গ্রামের কৃষক আব্দুস সালাম জমিতে কাজ করছিলেন। এসময় পূর্বশত্রুতার জেরে আসামিরা তাকে পেছন  থেকে গুলি করে। গুলিবিদ্ধ সালাম মাটিতে লুটিয়ে পড়ে যায়। এসময় তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এঘটনায় ২৪ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত সালামের ভাই আব্দুল জব্বার। পুলিশ ১৯৯৯ সালের ১ আগস্ট ২৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। মামলা চলাকালিন ৩ জন আসামির মৃত্যু হয়। দীর্ঘ স্বাক্ষী ও শুনানি শেষে সোমবার ২১ জন আসামির বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করে আদালত।
আসামিদের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সনৎ কুমার সরকার। বাদী পক্ষে ছিলেন এ্যাডভোকেট ইতি হোসেন স্বপ্না ও আব্দুর রহিম এবং রাষ্ট্রপক্ষ পক্ষে শুনানি করেন সরকারি কৌশুলি (অতিরিক্ত পিপি) অ্যাডভোকেট ইউসুফ আলী।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

সিলেটে সাংবাদিক ফতেহ ওসমানী হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

কুমিল্লায় জমজমাট মাছ ধরার চাইয়ের হাট