ভিতরে

চট্টগ্রামে করোনার সংক্রমণ কমেছে

 চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। পরপর দ্বিতীয় দিনের মতো সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ৩ জন নতুন বাহক শনাক্ত হয়েছে। সংক্রমণ হার ২ দশমিক ৪৭ শতাংশ।
করোনা সংক্রান্ত জেলার হালনাগাদ পরিস্থিতি নিয়ে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রেরিত আজকের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা যায়।
সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিবেদনে দেখা যায়, ফৌজদারহাট বিআইটিআইডি ও নগরীর আট ল্যাবরেটরিতে গতকাল ১২১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নতুন আক্রান্ত ৩ জনের মধ্যে ২ জন শহরের ও একজন মিরসরাই উপজেলার। জেলায় করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ২৯ হাজার ৪৪৬ জনে। এর মধ্যে শহরের ৯৪ হাজার ৩৮৫ জন এবং গ্রামের ৩৫ হাজার ৬১ জন। করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৩৬৭ জনই রয়েছে। এতে শহরের ৭৩৭ ও গ্রামের ৬৩০ জন।
ল্যাবভিত্তিক আজকের রিপোর্টে দেখা যায়, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ল্যাবে ২৩ নমুনায় শহর ও গ্রামের একটি করে আক্রান্ত পাওয়া যায়। আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের আরটিআরএল-এ ২ জনের নমুনায় শহরের একজনের পজিটিভ রেজাল্ট আসে। এছাড়া, ফৌজদারহাটস্থ বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস ল্যাবে ৩৫, বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ১৮,  আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে ৩, এপিক হেলথ কেয়ারে ৮, মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ২৬, এশিয়ান স্পেশালাইজড হাসপাতালে ৫ ও এভারকেয়ার হসপিটাল ল্যাবে একটি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। সাত ল্যাবে ৯৬ নমুনার সবগুলোরই নেগেটিভ রেজাল্ট আসে।
ল্যাবভিত্তিক রিপোর্ট বিশ্লেষণে চমেকহা’য় ৮ দশমিক ৬৯ ও আরটিআরএলে ৫০ শতাংশ এবং বিআইটিআইডি, ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল, আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতাল, এপিক হেলথ কেয়ার, মেট্রোপলিটন হাসপাতাল, এশিয়ান স্পেশালাইজড হাসপাতাল ও এভারকেয়ার হসপিটাল ল্যাবে ০ শতাংশ সংক্রমণ হার নির্ণিত হয়।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

আইএমএফ ঋণের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ২ সপ্তাহের মধ্যে : বিবি

নিরবচ্ছিন্ন মোবাইল নেটওয়ার্ক চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে রিট