ভিতরে

আয়ারল্যান্ডকে নিয়ে আত্মতুষ্টিতে ভোগার কোন কারণ দেখছেন না বাটলার

ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার বলেছেন, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আগামীকালের ম্যাচ নিয়ে আত্মতুষ্টিতে ভুগছেনা তার দল। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডকে অবহেলা করলে ‘ক্ষতিগ্রস্ত’ হতে হবে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।
গত শনিবার পার্থে আফগানিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছে ইংল্যান্ড। ওই ম্যাচে বোলিং ও ফিল্ডিং দুই বিভাগেই তারা ছিল অপ্রতিদ্বন্দ্বি। ১০ রানে ৫ উইকেট নিয়ে ম্যাচে তারকা দ্যুতি ছড়িয়েছেন ইংলিশ বোলার স্যাম কারান। ইংলিশ ফাস্ট বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রথম ৫ উইকেট শিকার করেছেন তিনি।
অপরদিকে কোয়ালিফাইং পর্ব থেকে উঠে আসা আয়ারল্যান্ড হোবার্টে তাদের সুপার ১২ পর্ব শুরু করেছে শ্রীলংকার কাছে ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে পরাজয় নিয়ে। র‌্যাংকিংয়েও দুই দলের মধ্যে রয়েছে বিস্তর ব্যবধান। ইংল্যান্ড তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে থাকলেও আয়ারল্যান্ডের অবস্থান ১২তম। ছয় দলের গ্রুপ থেকে মাত্র দুটি দল শেষ চারে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। তবে  প্রতিবেশী দেশটির বিপক্ষে আসন্ন ম্যাচে আত্মতুষ্টিত ভুগতে চায় না ইংল্যান্ড।
মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে আসন্ন ম্যাচকে সামনে রেখে বাটলার বলেন,‘ আমরা তাদেরকে সমীহ করি।  আশা করছি ম্যাচটি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপুর্ন হবে। আমরা বেশ ভালোভাবেই প্রস্তুত হচ্ছি। কন্ডিশন পর্যবেক্ষন করছি যাতে ওই ম্যাচেও এগিয়ে থাকতে পারি। নিজেদের সেরাটা দিয়েই  ম্যাচটি জিততে চাই।’
বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া, রানারআপ নিউজিল্যান্ড এবং ২০১৪ সালের শিরোপা জয়ী শ্রীলংকাকে নিয়ে গঠিত  কঠিন গ্রুপে খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিতে একাদশ গঠন  কিছুটা পরিবর্তন আনতে পারে ইংল্যান্ড। তবে বাটলার বলেছেন, মাঠের পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে সেরা দলটিই মাঠে নামানো হবে।
তিনি বলেন,‘ সংক্ষিপ্ত ভার্সনের টুর্নামেন্টে প্রতিটিই  মাস্ট উইন ম্যাচ। তাই সবসময় কন্ডিশন ও প্রতিপক্ষ বিবেচনায় নিয়ে আমরা সেরা দলটিকেই মাঠে নামনোর চেস্টা করি।’
-সত্যিই রোমঞ্চকর-
আপনি যদি প্রতিটি মুহুর্তে সঠিক বিষয়টি বিবেচনায় না রাখেন এবং প্রতিপক্ষকে অবহেলা করেন, তাহলে ফল ভোগ করতে হবে। আমার মতে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট এমন একটি বিশেষ খেলা, যে ফর্মেটে অংশগ্রহনকারী প্রতিটি দলেরই সমান সুযোগ থাকে। 
আগামীকালকের ম্যাচে আবহাওয়া একটি গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রাখতে পারে। কারণ পুর্বাভাস অনুযায়ী বৃস্টিতে ম্যাচ ভেসে যাবার সম্ভবনা ৮০ শতাংশ। বাটলার মনে করেন যে কোন পরিস্থিত মোকাবেলা করার মতো দক্ষতা তার দলটির রয়েছে। ‘ম্যাচে কি ঘটতে পারে তা ভেবে গোটা রাত জেগে থাকতেও রাজি নন’ বলে জানিয়েছেন তিনি। 
ইংলিশ অধিনায়ক বলেন,‘ আমার মতে ওই রকম পরিস্থিতিতে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারাটাই বেশী গুরুত্বপুর্ন। এমন পরিস্থিতির সৃস্টি হলে কি করতে হবে তার কিছুটা হলেও ধারনা আপনার থাকতে হবে। আমি আবারো বলছি, আফসোস না করে যখন যে পরিস্থিতির সৃস্টি হবে সেটির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে দ্রুত সিদ্ধন্ত নেয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।’
এদিকে আয়ারল্যান্ড জানে টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে হলে এই ম্যাচে তাদেরকে অবশ্যই জয়লাভ করতে হবে। কোচ হেনরিখ মালাম বলেছেন, সামনের কাজ নিয়ে তারা ‘সত্যিই রোমঞ্চিত’। তিনি বলেন,‘ আমরা দীর্ঘ দিন তাদের বিপক্ষে সাদা বলের ক্রিকেট খেলিনি। সুতরাং এই চ্যালেঞ্জটি দারুন হবে।
আমরা জানি তাদের দলে বেশ কিছু দক্ষ খেলোয়াড় রয়েছে যাদের ( মোকাবেলা করাটা) চ্যালেঞ্জিং হবে। তবে আমি এটিও মনে করি আমরা আমাদের খেলার মাধ্যমে দেখিয়ে দিয়েছি দলে এমন কিছু খেলোয়াড় আছে যারা নিজেদের নাম আলোকিত করতে বেশ পারদর্শী।’
নিজেদের দক্ষতা প্রমানের জন্য দল উন্মুখ হয়ে আছে উল্লেখ করে আইরিশ কোচ বলেন,‘ আশা করছি আগামীকাল আমরা আগ্রাসী রূপ নিয়ে বেরিয়ে আসতে পারব।’

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: নিউজিল্যান্ডের লক্ষ্য টানা দ্বিতীয়: আফগানিস্তানের প্রথম

সিডনি পৌঁছেছে টাইগাররা