ভিতরে

বেনজেমাই জিতলেন ব্যালন ডি’অর

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটানো ফরাসি তারকা করিম বেনজেমার হাতেই উঠেছে এবারের ব্যালন ডি’অর ট্রফি। প্যারিসে সোমবার রাতে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বেনজেমার হাতে ট্রফি তুলে দেন সাবেক ফরাসি তারকা জিনেদিন জিদান।
নারী  বিভাগে এই ট্রফি ধরে রেখেছেন বার্সেলোনার স্প্যানিশ তারকা এ্যালেক্সিয়া পুতেয়াস। টানা দ্বিতীয়বারের মত পুতেয়াস মর্যাদাকর এই ট্রফিটি নিজের করে রাখলেন। 
১৯৯৮ সালে জিদানের পর প্রথম ফরাসি খেলোয়াড় হিসেবে ফুটবলের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী এই পুরস্কার জিতলেন বেনজেমা। ক্যারিয়ারে এটি তার প্রথম ব্যালন ডি’অর প্রাপ্তি। গত মৌসুমে রিয়ালের হয়ে ৪৬ ম্যাচে করেছেন ৪৪ গোল, ক্লাবকে উপহার দিয়েছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও লা লিগা শিরোপা। 
এর মধ্যে ১৫টি গোল ছিল চ্যাম্পিয়ন্স লিগে। পিএসজি ও চেলসির বিপক্ষে নক আউট পর্বে বেনজেমার হ্যাটট্রিকেই রিয়াল খাদের কিনারা থেকে নিজেদের রক্ষা করে শেষ পর্যন্ত শিরোপা ঘরে তুলে। সেমিফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে দুই লেগেও করেছেন তিন গোল। এসবই এবারের ব্যালন ডি’অর পুরস্কারের জন্য তাকে ফেভারিট করে তুলেছিল। 
৩৪ বছর বয়সী বেনজেমা জাতীয় দলের হয়েও নিজেকে প্রমান করেছেন। উয়েফা নেশন্স লিগে ফ্রান্সের শিরোপা জয়ে তার অবদান রয়েছে। ২০২১ সালে রেকর্ড সপ্তমবারের মত এই পুরস্কার জয় করা আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি এবার তালিকায় মনোনীতই হননি। 
কাল অনুষ্ঠান স্থলে বিশ্বের সাবেক ও বর্তমান তারকাদের ভিড়ে আলাদা করে সব স্পটলাইট যেন ছিল বেনজেমার উপরেই। বারবার টেলিভিশন স্ক্রিনে তাকে দেখানোর উদ্দেশ্য সকলে বুঝতে পেরেছিল। সোনলী ফ্রেমের চশমা সাদা শার্ট-কালো স্যুট পরিহিত বেনজেমাকে যেন আরো বেশী উজ্জ্বল করে তুলেছিল। 
প্রথমবারের মত এই ট্রফি হাতে নিয়ে বেনজেমা বলেছেন, ‘ব্যালন ডি’অর একটি ব্যক্তিগত পুরস্কার হতে পারে, কিন্তু এখনো এটি একটি সমন্বিত পুরষ্কার। এটা মানুষের ব্যালন ডি’অর। এই ট্রফিটি জয়ের ইচ্ছা আমার মনের মধ্যে সবসময় ছিল।’
ব্যালন ডি’অর পুরস্কার জয়ে বেনজেমা পিছনে ফেলেছেন বায়ার্ন মিউনিখের সাদিও মানে ও ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন ডি ব্রুইনাকে। বার্সেলোনার পোলিশ তারকা রবার্ট লিওয়ানদোস্কি হয়েছেন চতুর্থ। যদিও মাঠের বাইরে সেনেগালের সাধারন মানুষের জন্য সামাজিক কর্মকান্ডে অসাধারন অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ মানেকে দেয়া হয়েছে সাবেক ব্রাজিলিয়ান তারকা সক্রেটিসের নামে এবারই প্রথমবারের মত প্রবর্তিত পুরস্কারটি। 
ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিন  প্রদত্ত এই পুরস্কারটি বেনজেমার ক্যারিয়ারের অসাধারণ উত্থানের স্বীকৃতি। জাতীয় দলের সাবেক সতীর্থ ম্যাথিউ ভালবুয়েনার সাথে যৌন আলাপচারিতার ফোনালাপ স্ক্যান্ডালে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগে সাড়ে পাঁচ বছর ছিলেন জাতীয় দলের বাইরে। এই ঘটনায় তাকে এক বছরের নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি ৭৫ হাজার ইউরো জরিমানা করা হয়। গত বছর ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নশীপের মাধ্যমে তিনি জাতীয় দলে ফিরে আসেন। আগামী মাসে কাতার বিশ্বকাপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের হয়ে তিনি মাঠে নামতে পুরোপুরি প্রস্তুত। 
১৯৫৬ সালে স্টানলি ম্যাথিউসের পর সবচেয়ে বেশী বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে ব্যালন ডি’অর জয় করলেন এই ফরাসি স্ট্রাইকার। আগামী ১৯ ডিসেম্বর বিশ্বকাপের ফাইনালের দিন ৩৫ বছরে পা দিবেন বেনজেমা। 
পঞ্চম ফরাসি খেলোয়াড় হিসেবে বেনজেমা এই পুরস্কার জয় করেছেন। জিদানের আগে এই পুরস্কার জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছিলেন রেমন্ড কোপা, মিশেল প্লাতিনি ও জিন-পিয়েরে পাপিন। 
এর আগে এক ক্যালেন্ডার বছরে একজন খেলোয়াড়ের সার্বিক পারফরমেন্স বিবেচনায় পুরস্কার বিজয়ীকে বেছে নেয়া হতো। এ বছর এই ফর্মেট পরিবর্তন করে গত মৌসুমের পারফরমেন্স রেকর্ডের উপর ভিত্তি করে সেরা খেলোয়াড়কে বেছে নেয়া হয়েছে।
গত মৌসুমের সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার লেভ ইয়াসিন ট্রফি জয় করেছেন রিয়াল মাদ্রিদের থিবো কোর্তোয়া। সাবেক রাশিয়ার কিংবদন্তী গোলরক্ষক লেভ ইয়াসিনের নামে এই পুরস্কার দেয়া হয়।
গত মে মাসে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে লিভারপুলের বিপক্ষে ১-০ গোলের জয়ে তিনিই ছিলেন সেরা খেলোয়াড়। দুর্দান্ত ৯টি সেভ করেছিলেন ৩০ বছর বয়সী এই বেলজিয়ান গোলরক্ষক। ২০০৩-০৪ মৌসুমের পর প্রতিযোগিতাটির ফাইনালে যা সবচেয়ে বেশি সেভ করার কীর্তি। ২০২১-২২ মৌসুমে মোট তিনটি শিরোপা জিতেছে রিয়াল- চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, লা লিগা ও স্প্যানিশ সুপার কাপ। প্রতিটি শিরোপা অর্জনে দুর্দান্ত অবদান রাখেন কোর্তোয়া।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

২০২৩ এশিয়ান কাপের স্বাগতিক হিসেবে দায়িত্ব পেল কাতার

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: কাল দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি বাংলাদেশ