ভিতরে

বিবিসি’র সম্প্রচারের শতবর্ষ উদযাপন 

 বিশ্বের মিডিয়া জায়ান্ট ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন (বিবিসি) তার বর্ণাঢ্য অতীত এবং অনিশ্চিত ভবিষ্যত সামনে রেখে মঙ্গলবার ১০০ বছর উদযাপন করছে। ‘ইনফর্ম, এডুকেট অ্যান্ড এন্টারটেইন’ বা মানুষকে তথ্য, শিক্ষা বা বিনোদন দেবার জন্য ১৯২২ সালের ১৮ অক্টোবর এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।
এক শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে বিবিসি নিজেকে ব্রিটেনের সবচেয়ে দৃশ্যমান এবং মর্যাদাপূর্ণ বৈশ্বিক ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে অবস্থান তৈরি করেছে। 
কর্পোরেশনের ২০২১-২০২২ বার্ষিক প্রতিবেদন অনুসারে এই সম্প্রচার সংস্থাটি প্রতি সপ্তাহে বিশ্বজুড়ে ৪৯২ মিলিয়ন শ্রোতাদের কাছে পৌঁছায়।
বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস বিশ্বব্যাপী সপ্তাহে প্রায় ৩৬৪ মিলিয়ন মানুষের কাছে ৪১টি ভাষায় অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে।
বিবিসি মহাপরিচালক টিম ডেভি এই সংস্থাটির বিশাল অর্জন সম্পর্কে বলেছেন, ‘এক শতাব্দী ধরে, বিবিসি বিশ্বজুড়ে বিশ্বস্ত সংবাদ এবং প্রোগ্রামিংয়ের আলোকবর্তিকা, সেইসাথে যুক্তরাজ্যের সংস্কৃতি ও রূপান্তরের অংশ এবং এর অন্যতম প্রধান প্রতিষ্ঠান।’
প্রায় ৭ মিলিয়ন মানুষের জন্য প্রতিটি দিন শুরু হয় বিবিসি রেডিও ৪ এর ফ্ল্যাগশিপ ‘টুডে’ প্রোগ্রাম দিয়ে, যা প্রয়াশই রাজনৈতিক এজেন্ডা সেট করে।
কিন্তু শতবর্ষে একটি অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে বিবিসি, বাজেট ঘাটতি এবং  ডিজিটাল বিপ্লবের ফলে শ্রোতা দর্শকদের রুচির পরিবর্তনের আভাস থেকে এর ভবিষ্যত নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। 
সরকার জানুয়ারিতে ঘোষণা করেছে যে, বিবিসির লাইসেন্স-ফি তহবিলে অর্থায়ন মডেলটিকে দুই বছরের জন্য স্থগিত করবে। আশঙ্কা করা হচ্ছে এটি ভবিষ্যতে বাতিল হয়ে যেতে পারে।
তবে বিবিসি চেয়ারম্যান রিচার্ড শার্প অঙ্গীকার করেছেন যে,এই সম্প্রচার সংস্থাটি ‘আরেক শতাব্দীর জন্য মানুষকে তথ্য, শিক্ষা এবং বিনোদন দেবার জন্য তাদের কার্যক্রম অব্যাহত রাখবে।’ 

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

রাশিয়ার সাথে বন্দি বিনিময়ের অংশ হিসেবে মুক্তি পেলেন ১০৮ নারী : ইউক্রেন

যুক্তরাষ্ট্রে কলম্বিয়ার মাদক সম্রাটের ৩৫ বছর কারাদন্ড