ভিতরে

টাঙ্গাইলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের হা-ডু-ডু খেলা 

 “দৃষ্টি জয়ে ব্যবহার করি, প্রযুক্তি নির্ভর সাদাছড়ি” এই শ্লোগানকে সামনে নিয়ে জেলায় আজ দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের আকর্ষণীয় হা-ডু-ডু খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস উপলক্ষে দুপুরে জেলার আউটার স্টেডিয়ামে টাঙ্গাইল গ্রামীণ প্রতিবন্ধী উন্নয়ন কেন্দ্র (সিআরডিডি) এ খেলার আয়োজন করে।  
দৃষ্টি প্রতিবন্ধী খেলোয়াড় শওকত মিয়া বলেন, এই খেলায় অংশগ্রহণ করে আমি এতো আনন্দ পেয়েছি, আমার যা দুঃখ ছিল সব ভুলে গেছি। এরকম খেলার প্রতিবছর আয়োজন করার দাবি জানাচ্ছি। আরেক খেলোয়াড় জিয়ারুল ইসলাম বলেন, আমরা বিভিন্ন জায়গায় হা-ডু-ডু খেলায় অংশগ্রহণ করি। অনেক ভালো লাগছে খেলায় অংশগ্রহণ করে। আমরা আয়োজকদের কাছে দাবি জানাই। এ ধরনে আয়োজন প্রতিবছর করা হোক মানুষদের জানি আমরা আনন্দ দিতে পারি। 
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আমিনুল ইসলাম। গ্রামীণ প্রতিবন্ধী উন্নয়ন কেন্দ্র (সিআরডিডির) সভাপতি আবরার এইচকে ইউসুফজাই তনুর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া কর্মকতা আল আমিন সবুজ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মির্জা মঈনুল হোসেন লিন্টু। পরে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী তিনজনকে সাদাছড়ি উপহার দেওয়া হয়। 
খেলা দেখতে আসা দর্শক আলেয়া বেগম বলেন, আমি দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের খেলা কখনও দেখিনি। আজ দেখে অনেক ভালো লাগলো। 
ইউসুফজাই তনু বলেন, দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের নিয়ে আজ যে খেলার আয়োজন করা হয়েছে। তার প্রধান কারণ হলো প্যারা অলেম্পিকে ২০২৪ সালে যে খেলাটি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে প্যারিসে। সেখানে বিশ্বের সব কয়টি দেশ অংশগ্রহণ করে। এতে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের দাবিতে আমরা এ আয়োজন করেছি। 
আর্কষণীয় হা-ডু-ডু খেলায় প্রতি দলে ৭ জন করে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী খেলোয়াড় খেলায় অংশগ্রহণ করে। খেলায় নীল দল ১৯-১৪ পয়েন্টে সাদা দলকে পরাজিত করে। দৃষ্টি প্রতিবন্ধীরা হা-ডু-ডু খেলায় অংশগ্রহণ করে অত্যন্ত খুশি। খেলা দেখতে অসংখ্য দর্শক ভীড় জমায়। খেলা শেষে প্রত্যেক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী খেলোয়াড়কে অর্থ প্রদান করা হয়। 

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

কঙ্গোতে ১২ জনকে শিরশ্ছেদ করা হয়েছে

১০ গ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থা বদলে দিয়েছে বিজয়পাশা-পুকুরিয়া সড়ক