ভিতরে

ফেনীতে অবৈধ বালু উত্তোলন ও নদী দখল বন্ধে অভিযান

ফেনীতে নদীর মুহুরী প্রজেক্ট রেগুলেটর সংলগ্ন অংশে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন এবং কলমির চরে নদী দখল করে মাছ চাষ বন্ধে অভিযান পরিচালনা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও পরিবহনের দায়ে দু’টি বালু ভর্তি বড় ট্রলার জব্দ করা হয়। 
আজ মঙ্গলবার দুপুরের দিকে মহুরি প্রজেক্ট এলাকায় এই অভিযান পরিচালনা করেন সোনাগাজী উপজেলা প্রশাসন। 
অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এসএম মনজুরুল হক, নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) অনিক চৌধুরী। এতে ভূমি অফিসের কর্মকর্তা এবং সোনাগাজী মডেল থানার এক দল পুলিশ সদস্য, আনসার সদস্যরা অংশ নেয়।
ইউএনও জানান, মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় সোনাগাজীর সোনাপুর বালু মহাল। এটি ৭ নম্বর সোনাপুর, ৬৯ নম্বর থাকখোয়াজের লামছি মৌজায় অবস্থিত। 
স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় দখলদারদের কারণে একদিকে নদী দখল হচ্ছে, অন্যদিকে বালু উত্তোলনের কারণে নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ছে। অবৈধভাবে ও অপরিকল্পিত বালু উত্তোলনের কারণে অনেক জায়গায় নদীর পাড় ভেঙ্গে গেছে। বিলীন হচ্ছে কৃষকের ফসলি জমি। হুমকির মুখে বাড়িঘর ও মুহুরী প্রজেক্ট রেগুলেটর। এছাড়া নদী দখল করে মাছ চাষে নদীর স্বাভাবিক গতি হারিয়েছে। 
ইউএনও আরো বলেন, সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, মুহুরী প্রজেক্ট এলাকার সোনাপুর মৌজায় অনেক বেশি জায়গা জুড়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। অভিযানে বালু বহনের কাজে ব্যবহৃত দু’টি ট্রলার জব্দ করা হয়। শ্রমিক ছাড়া কাউকে না পাওয়ায় জরিমানা করা সম্ভব হয়নি। তবে ট্রলার মালিক এবং যাদের নির্দেশে বালু উত্তোলন চলছে, বৃহস্পতিবারের মধ্যে দ্রুত অফিসে দেখা করার জন্য বলা হয়েছে।
তিনি জানান, মুহুরী প্রজেক্টের কলমির চরে মাছ চাষের নামে নদী দখলদারদের আগামী ৭দিনের মধ্যে স্থাপনা সরিয়ে নদীর গতিপথ উন্মুক্ত রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। জনস্বার্থে এই ধরণের অভিযান অব্যবহত থাকবে।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

কুমিল্লায় জামিলা বেগম হত্যা মামলায় ৩ জনের মৃত্যুদন্ড

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি তপন, সাধারণ সম্পাদক শামসুল