ভিতরে

উচ্চ রক্তচাপ অনেক মরণঘাতী রোগের কারণ ঘটায় : সেমিনারে বক্তরা

 বিএসএমএমইউ’তে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে বক্তরা বলেছেন, উচ্চ রক্তচাপের কোন লক্ষণ না থাকলেও এটি হার্ট এটাক, হার্ট ফেইলিউর, স্টোক, দৃষ্টিশক্তি হারানো, কিডনি ফেইলিউর ও রক্তনালীর রোগসহ অনেক মরণঘাতী রোগের কারণ ঘটায়। 
এন্ডোক্রাইন হাইপারটেনশন স্টাডি গ্রুপের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) আজ উচ্চ রক্তচাপ ও হাইপার এল্ডোস্টেরনিজম বিষয়ক সচেতনতা মূলক এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। 
‘স্ক্রিনিং ফর প্রাইমারি অ্যালডোসটেরোনিসম: দ্যা লিডিং কজ অব সেকেন্ডারি এইচটিএন’ শীর্ষক উক্ত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে বক্তারা আরো বলেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে উচ্চ রক্তচাপ এর কোন কারণ পাওয়া না গেলেও শতকরা ৫-১০ জনের ক্ষেত্রে কারণ নির্ণয় করা যায় এবং এই রোগ পূর্ণ নিরাময়যোগ্য। 
 সেমিনারে জানানো হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের এন্ডোক্রাইনোলোজি বিভাগ অস্ট্রেলিয়ার  মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যৌথভাবে এ সংক্রান্ত গবেষণা কার্যক্রম শুরু করেছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের হৃদরোগ বিভাগ ও এন্ডোক্রাইনোলোজি বিভাগ পৃথক উচ্চ রক্তচাপ ক্লিনিকের মাধ্যমে এ রোগীদের বিশেষ সেবা দিয়ে যাচ্ছে। 
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, ৩০-৭৯ বছর বয়সী জনগোষ্ঠীর শতকরা ১ দশমিক ৪ শতাংশ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন, যার দুই তৃতীয়াংশ নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশের জনগণ। 
 সেমিনারে প্রধান অতিথি বক্তৃতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, বর্তমান সময়ে হাইপার টেনশন রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ, উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপার টেনশনে লক্ষণ থাকে না।  বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এর কোন কারণ পাওয়া না। হাইপারটেনশনে আক্রান্ত রোগীরা নিজেরাও বুঝতে পারেন না। বুঝলেও সচেতনতার অভাবে তারা দিন দিন মৃত্যুর দিকে ধাবিত হন।
এন্ডোক্রাইনোলোজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মুহম্মদ আবুল হাসানাতের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শারমিন জাহান ও হৃদরোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মো. ফখরুল ইসলাম খালেদ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট

একটি মন্তব্য

বাংলাদেশে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের নার্সিং ও মিডওয়াইফারি প্রোগ্রাম

৩ দিনব্যাপী দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সর্ববৃহৎ নৌকা বাইচ উৎসব চলছে