ভিতরে

চট্টগ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ও পাহাড় ধসে তিন জনের মৃত্যু  

চট্টগ্রাম নগরীর কাতালগঞ্জের খান হাউসে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই ব্যক্তি ও চশমা হিল গ্রিন ভ্যালি আবাসিক এলাকায় পাহাড়ের মাটি ধসে দেয়াল চাপায় এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।
সোমবার (২০ জুন) সকালে কাতালগঞ্জের খান হাউসের নিচতলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ও ভোরে পাহাড় ধসের পৃথক দুর্ঘটনা দুটি ঘটে বলে জানিয়েছেন পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন।
নগরীর চন্দনপুরা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার শহিদুল ইসলাম বলেন, বৃষ্টির কারণে কাতালগঞ্জের খান হাউসের নিচতলায় হাঁটু পরিমাণ পানি উঠে। সেখানকার সিঁড়ির পাশেই ছিল আইপিএসের সংযোগ। পানি উঠায় কেয়ারটেকার আবু তাহের আইপিএস বন্ধ করতে গেলে বিদ্যুতায়িত হয়ে আটকে যান। তাকে বাঁচাতে গিয়ে ড্রাইভার মো. হোসেনও বিদ্যুতায়িত হন।
পাঁচলাইশ থানার ওসি মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন বলেন, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট দুইজনকে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। 
এদিকে সোমবার (২০ জুন) ভোরে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানার চশমা হিল গ্রিন ভ্যালি আবাসিক এলাকায় পাহাড়ের মাটি ধসে দেয়াল চাপায় রায়হান (১১) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। দেয়ালটি পাশের দোকানের ওপর পড়লে ঘুমন্ত অবস্থায় রায়হান মারা যায়। তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার লাকসামে বলে জানা গেছে।
পাঁচলাইশ থানার ওসি মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন বলেন, গ্রিন ভ্যালি আবাসিক এলাকায় পাহাড়ের পাশে রায়হানের বাবার একটি খুপড়ি দোকান ছিল। ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র রায়হান রাতে দোকানেই ছিল। রাতে তার বাবা দোকান থেকে চলে যাওয়ার সময় ছেলেকে বাসায় চলে যেতে বলেছিল। কিন্তু রায়হান বাসায় না গিয়ে দোকানে ঘুমিয়ে পড়ে। পরে রাতের কোনো একসময় পাহাড় ধসে দোকানের পাশের একটি দেয়ালের ওপর পড়ে। দেয়ালটি ভেঙে দোকানের ওপর পড়ে। এতে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই রায়হান মারা যায়। 

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

নারায়ণগঞ্জে ব্যবসায়ী সেলিম হত্যা মামলায় দু’জনের যাবজ্জীবন

চিটাগাং চেম্বার ও ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্রুপের কান্ট্রি পার্টনারশিপ ফ্রেমওয়ার্ক বিষয়ে পরামর্শ সভা