ভিতরে

চিটাগাং চেম্বারের পক্ষ থেকে ৬ হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার মেশিন ও মাস্ক প্রদান

দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির পক্ষ থেকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালসহ নগরীর ৬টি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালকে দুই সেট করে মোট ১২ সেট বাইলেভেল পজিটিভ এয়ারওয়ে প্রেসার (ইরচঅচ) মেশিন ও মাস্ক প্রদান করা হয়েছে। 
গতকাল বুধবার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ চেম্বার কার্যালয়ে সভাপতি মাহবুবুল আলম হাসপাতাল প্রতিনিধিবৃন্দের নিকট উল্লিখিত মেশিন ও মাস্ক হস্তান্তর করেন। এ সময় চেম্বার পরিচালক মো. অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), অঞ্জন শেখর দাশ, মোহাম্মদ আদনানুল ইসলাম ও তানভীর মোস্তফা চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। চট্টগ্রাম মা-শিশু-ও জেনারেল হাসপাতাল কার্যকরী কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এসএম মোরশেদ, ট্রেজারার ডা. রেজাউল করিম আজাদ এবং উপ-পরিচালক (প্রশাসন) ডা. এ কে এম আশরাফুল করিম, ইউএসটিসি পরিচালক ডা. কামরুল হাসান, সাউদার্ন মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালের প্রিন্সিপাল ও মেডিসিন বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা. জয়ব্রত দাশ এবং সহযোগী অধ্যাপক ও কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগীয় প্রধান ডা. দেওয়ান আসাদুল্লাহ, বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন ও ডেপুটি ম্যানেজার (এডমিন) আজিজুল হক ভূঁইয়া এবং আল মানাহিল নার্চার হাসপাতালের মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে মেশিন ও মাস্ক গ্রহণ করেন। চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে প্রদানের জন্য ২ সেট মেশিন ও মাস্ক সিভিল সার্জন কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়। এছাড়া হাটহাজারী, রাউজান, পটিয়া ও কর্ণফুলী এই ৪ উপজেলায় বিতরণের জন্য  চেম্বারের পক্ষ থেকে এক হাজারটি করে মাস্ক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে এবং পর্যায়ক্রমে চট্টগ্রামের সকল উপজেলায় প্রেরণ করা হবে। 
চিকিৎসা ও সুরক্ষা সামগ্রী হস্তান্তরকালে চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, বর্তমানে করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে চট্টগ্রাম অঞ্চলে সাধারণ জনগণ অত্যন্ত ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। আক্রান্ত ও মৃত্যুহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে চিটাগাং চেম্বারের পক্ষ থেকে করোনা রোগীদের চিকিৎসার্থে বাইপ্যাপ মেশিন প্রদান করা হচ্ছে। এসব মেশিন ব্যবহারের ফলে রোগীরা সহজে অক্সিজেন গ্রহণ করতে পারবেন যা জীবন রক্ষায় সহায়ক হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, চিটাগাং চেম্বারের পক্ষ থেকে করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে নগরীর বিভিন্ন স্থানে স্যাম্পল কালেকশন বুথ স্থাপন, হাসপাতালে হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা মেশিন, অক্সিজেন সিলিন্ডার, মাস্ক, স্যানিটাইজার ইত্যাদি প্রদান করা হয়। এছাড়া স্বল্প আয়ের জনগণের জন্য নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে ভর্তুকি মূল্যে ভোগ্যপণ্য বিক্রি করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় বাইপ্যাপ মেশিন প্রদান করা হচ্ছে। মাহবুবুল আলম ব্যবসায়ীসহ সমাজের বিত্তবানদের করোনা চিকিৎসায় সহায়তা করার লক্ষ্যে এগিয়ে আসার আহবান জানান। 
তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্ব ও দিক নির্দেশনায় দেশব্যাপী করোনার টিকাদান কর্মসূচি চলমান রয়েছে। একই সাথে টিকা গ্রহণে সাধারণ মানুষের ব্যাপক আগ্রহের ফলে টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে যথেষ্ট চাপ লক্ষ্যণীয় হচ্ছে। তাই টিকাদান কর্মসূচিকে আরো ব্যাপক ও বেগবান করতে চট্টগ্রাম শহরে অবস্থিত করোনার টিকা প্রদানে সক্ষম বেসরকারি হাসপাতালে কেন্দ্র স্থাপন এবং সিটি কর্পোরেশনের মাধ্যমে টিকাদান কর্মসূচি পরিচালনার জন্য তিনি সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান। উল্লেখ্য, চেম্বার সভাপতি ব্যক্তিগতভাবেও বিভিন্ন হাসপাতালে হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা, অক্সিজেন সিলিন্ডার ও সম্মুখ যোদ্ধাদের সুবিধার্থে পরিবহন সেবা প্রদানসহ নি¤œআয়ের বিভিন্ন ব্যক্তি ও পরিবারকে নগদ আর্থিক সহযোগিতা করেছেন। 
চিকিৎসা সামগ্রী গ্রহণকালে উপস্থিত বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চিকিৎসকবৃন্দ বলেন, বর্তমানে দূর-দূরান্তের গ্রামে পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বৃদ্ধি পাচ্ছে যাদের চিকিৎসা করার মত আর্থিক সামর্থ্য নেই। কেননা এই চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। তাই দরিদ্র রোগীদের করোনা চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ, ডাক্তার ও নার্সদের যাতায়াতের জন্য পরিবহন সরবরাহ, চট্টগ্রামে একটি অক্সিজেন ডিপো স্থাপন, হাসপাতালে সাব- স্টেশন, এমআরআই, সিটি স্ক্যান, আলট্রা সাউন্ড ইত্যাদি যন্ত্রপাতি স্থাপন এবং হাসপাতালের যাকাত ও দরিদ্র তহবিলে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করার জন্য ব্যবসায়ীসহ সমাজের স্বচ্ছল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রতি তাঁরা আহবান জানান। পাশাপাশি চেম্বারসহ যেসব প্রতিষ্ঠান করোনা চিকিৎসার ক্ষেত্রে সহায়তা করেছেন তাদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

জার্নালে গবেষণা-প্রবন্ধ প্রকাশের জন্য গবেষকদের অনুদান দেবে ঢাবি

বিএসএমএমইউয়ে শিক্ষা, চিকিৎসা ও গবেষণা কার্যক্রম এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আহবান