ভিতরে

টাইব্রেকারে কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোপার ফাইনালে আর্জেন্টিনা

কলম্বিয়াকে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে হারিয়ে এক মৌসুম পর আবারও কোপা আমেরিকার ফাইনালে উঠলো আর্জেন্টিনা। শিরোপার লড়াইয়ে তাদের প্রতিপক্ষ চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল।  এর ফলে নিশ্চিত হয় ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মধ্যে কোপা আমেরিকার স্বপ্নের ফাইনাল। ১৪ বছর পর বড় কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল -আর্জেন্টিনা। মেসি ও নেইমার প্রথমবারের মতো কোনো ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হবেন এবারের কোপা আমেরিকাতে। 
ফাইনালের  পথে কলম্বিয়া বাধা টপকাতে বেশ বেগই পেতে হয়েছে মেসিদের। যদিও ম্যাচের শুরুটা আলবিসেলেস্তেদের ছিল দুর্দান্ত। আরও একবার গোল মিসের মহড়া দেখেছে ফুটবল বিশ্ব।  শুরুটা ম্যাচের চার মিনিটে। মেসির কাছ  থেকে পাওয়া বল জাল জড়াতে ব্যর্থ গঞ্জালেস। যতিও লিডটা পেতে খুব যে বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি। সাত  মিনিটে কলম্বিয়ার স্বপ্ন ভঙ্গ করেন লটারো মার্টিনেজ। এবারও  এসিস্ট মেসির।  ১-০ গোলে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। অবশ্য পরের মিনিটে একটা পাল্টা আক্রমণে যায় কলম্বিয়ানরা। তবে গোল পোস্টে  এমিলিয়ানো মার্টিনেজ ভরসার প্রতীক হয়ে রক্ষা করেন। এরপর আরও বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ তৈরি করে স্কালোনির শিষ্যরা। তবে ফিনিশিং ব্যর্থতায় দ্বিগুণ হয়নি লিড।
ম্যাচের ৩৬ মিনিটে আলবিসেলেস্তেদের  বুকে কাঁপন ধরিয়ে দিয়েছিল কলম্বিয়া। তবে এবার রক্ষক গোল পোস্ট।  ম্যাচে বিরতিতে যাওয়ার আগের  গোল মিস করার  জন্য আক্ষেপ করতেই হবে গঞ্জালেসকে। মেসির কর্নার থেকে বলটার নিখুঁত ফিনিশিং  করতে পারেননি তিনি।
দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফেরে কলম্বিয়া। ৬২ মিনিটে লুইজ দিয়াজ দারুণ এক গোল কওে  সমতায় ফেরান দলকে। ৭৩ মিনিটে একেবারে  সহজ সুযোগটা নষ্ট করেআর্জেন্টিনা। ডি মারিয়া এবং মার্টিনেজ গোল পোস্ট খালি পেয়েও পারেননি দলকে এগিয়ে নিতে। ৮০ মিনিটেও  মেসির কিক ফিরে আসে  বারে লেগে। ফলে সমতায় শেষ হয় নির্ধারিত সময়। অতিরিক্ত সময় না থাকায় ম্যাচ সরাসরি গড়ায় টাইব্রেকারে। 
প্রথম দুইশটে গোল করে মেসি এবং কুয়াদ্রাদো। কলম্বিয়ার দ্বিতীয় শট ফিরিয়ে দেন আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। এরপর ইয়েরি মিনা এবং কার্ডোনার শট ফিরিয়ে এক মৌসুম পর আবারও দলকে ফাইনালে তুললেন  গোলরক্ষক।
২০০৭ সালে শেষবার কোপা আমেরিকার ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। সে আসরে ব্রাজিল ৩-০ গোলের জয়পায়। এরআগে,  ২০১৯ কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালেও ব্রাজিল ২-০ গোলে আর্জেন্টিনাকে  হারায়।   তবে  আর্জেন্টিনাএবং  ব্রাজিলের মধ্যেকার   প্রতিদ্বন্দ্বিতাতায় কোপা আমেরিকায় এগিয়ে আর্জেন্টিনা। এ পর্যন্ত ১৪ বার দক্ষিণ আমেরিকার সর্বোচ্চ শিরোপা জিতেছে আর্জেন্টিনা, নয় বার জিতেছে ব্রাজিল।  আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট  ও প্রতিযোগিতামূলক আসরে   ১০৭ বার মুখোমুখি হয়েছে ব্রাজিল -আর্জেন্টিনা। এর মধ্যে   ৪৮ বার জয় পেয়েছে ব্রাজিল, ৩৪ ম্যাচে আর্জেন্টিনা জয় পেয়েছে। ২৫টি ম্যাচ ড্র হয়েছে।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

নিষেধাজ্ঞার কারনে কোপা আমেরিকার ফাইনালে খেলতে পারছেন না জেসুস

ভারতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীসহ কয়েকজন মন্ত্রীর পদত্যাগ