ভিতরে

বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিনে ৩২০ জন গ্রেফতার

করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত  বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিনে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়ায় রাজধানীতে ৩২০জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।
ডিএমপির মিডিয়া ও পাবলিক রিলেসন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখারুল ইসলাম বাসসকে এ তথ্য জানান।
তিনি বলেন,শুক্রবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ডিএমপির আটটি ক্রাইম ও ট্রাফিক বিভাগ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায়  মোবাইল কোর্ট চালিয়ে ২০৮ জনকে বিভিন্ন পরিমাণ অর্থ জরিমানা করেছে। এ সময় বিভিন্ন যানবাহনের বিরুদ্ধে ২১৯টি মামলা দায়ের করে  মোট ৫ লাখ ৪৫ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
এডিসি ইফতেখায়রুল জানান,সরকারি নির্দেশনা প্রতিপালনে সকাল থেকে একযোগে রাজধানীর রমনা, লালবাগ, মতিঝিল, ওয়ারী, তেজগাঁও, মিরপুর, গুলশান, উত্তরার বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের বিভিন্ন  চেকপোস্ট, তল্লাশি ও জিজ্ঞাসাবাদ কার্যক্রম পরিচালিত হয়।
এর আগে বিধিনিষেধের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার (১জুলাই) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫৫০ জনকে  গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া প্রথম দিনে  মোবাইল  কোর্ট পরিচালনা করে ২১২ জনকে বিভিন্ন পরিমাণ অর্থ জরিমানা ও ৩৯১ জনকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। বিধিনিষেধের প্রথম দিনে ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগ ২৭৪টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৫০ টাকা জরিমানার পাশাপাশি ৭৭টি গাড়িকে  রেকারিং করে।
এদিকে র‌্যাব সদর দফতর জানিয়েছে, চলমান বিধিনিষেধ কার্যকর ও জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে  সারাদেশে মাঠে ছিল র‌্যাব। দ্বিতীয় দিনে সারা দেশে র‌্যাবের ১৬৬টি টহল এবং ১৪৫টি চেকপোস্ট বসানো হয়। এছাড়া র‌্যাব সারাদেশে ৫৯টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে। এসব ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২১৩ জনকে ২ লাখ ১৫ হাজার ৫৪০ টাকা জরিমানা করা হয়।
র‌্যাবের পরিচালক (মিডিয়া) কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, চেকপোস্ট ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের পাশাপাশি র‌্যাবের পক্ষ  থেকে বিনা প্রয়োজনে মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণের জন্য জনসচেতনতামূলক মাইকিং, লিফলেট বিতরণ ও বিনামূল্যে মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়েছে।
এছাড়া ১০০ দুস্থ পরিবারকে র‌্যাবের পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তাও করা হয়েছে।
করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকে শুরু হওয়া সপ্তাহব্যাপী কঠোর বিধিনিষেধের বাস্তবায়ন করতে ভোর  থেকে মাঠে ব্যাপক তৎপর রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
এরআগে করোনা ভাইরাসের বিস্তার  রোধে সরকার  ঘোষিত বিধি-নিষেধ কঠোরভাবে প্রতিপালনে মাঠ পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড.   বেনজীর আহমেদ।
বুধবার বিকেলে পুলিশ সদর দপ্তর  থেকে র্ভাচ্যুয়ালি সব   মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার,  রেঞ্জ ডিআইজি,   জেলা পুলিশ সুপার ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ (ওসি) সব ইউনিট প্রধানদের এ নির্দেশনা   দেন তিনি।
আইজিপি সরকারি বিধি-নিষেধ চলাকালে সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানান। একইসঙ্গে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বের হতে হলে অবশ্যই মাস্ক পরিধানসহ ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের অনুরোধ করেন।
১ জুলাই  থেকে রাজধানীতে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বের হলেই কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা  মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।
বুধবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।
মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, যুক্তিসংগত কারণ ছাড়া  কেউ  বের হলে তাকে  গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে। নির্দেশনা বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ে অত্যন্ত কঠোর অবস্থানে থাকবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। বিধি-নিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে দন্ডবিধির ২৬৯ ধারা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
করোনা ভাইরাসজনিত  রোগ (কোভিড-১৯) এর বিস্তার  রোধকল্পে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৬ টা  থেকে ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত সার্বিক কার্যাবলী ও চলাচলে বিধি-নিষেধ আরোপ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

তিনদিনে পার্বত্য অঞ্চলের প্রধান সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধিতে বন্যার সম্ভাবনা

কানাডায় ভয়াবহ তাপদাহের সাথে দাবানল যুক্ত হওয়ায় সরিয়ে নেয়া হয়েছে শত শত মানুষ