ভিতরে

ভালো খেলার লক্ষ্য নিয়ে জিম্বাবুয়ের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়লো বাংলাদেশ

একটি টেস্ট, তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি সিরিজ খেলতে আজ ভোরে  জিম্বাবুয়ের উদ্দেশ্যে দেশ ছেড়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল।
কাতার এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ভোর ৪টা ২৫মিনিটে দেশ ছাড়ে টাইগাররা। ২০১৩ সালের এই প্রথম জিম্বাবুয়ে সফরে গেল বাংলাদেশ। সফরটি স্মরনীয় করে রাখাই বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য। 
সর্বশেষ জিম্বাবুয়ে সফরে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ও দুই ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজ ১-১এ ড্র করলেও, তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ। 
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সাম্প্রতিক পারফরমেন্স ও আধিপত্যের পরও আসন্ন সিরিজে বাংলাদেশকে ফেভারিট বলা যাচ্ছে না। কারন নিজেদের কন্ডিশনে সব সময়ই শক্তিশালী এই দলটি। 
টেস্ট ও টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটে এখনো নিজেদের সেরাটা দিতে পারছেন না বাংলাদেশ। তাই এই দুই ফরম্যাটে জিম্বাবুয়ের সামনে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে টাইগারদের। 
ওয়ানডে সিরিজটি আইসিসি সুপার লিগের অংশ। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর এই ফরম্যাটে বেশিরভাগ ম্যাচেই জয় পেয়েছে  টাইগাররা। 
তবে একমাত্র টেস্টকে সামনে রেখে এই সফরের আগে বড় সংস্করণে কোন ম্যাচ খেলেনি বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) খেলেছিল তারা। যা টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটে অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং তাই এমন প্রস্তুতিকে আদর্শ হিসাবে গন্য করা যায় না। 
বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মোমিনুল হক বলেন, ‘অস্বীকার করার কোন উপায় নেই, একমাত্র টেস্টের জন্য আদর্শ প্রস্তুতি হয়নি। তবে আমরা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদি।’
তিনি আরও বলেন, ‘যদি আমরা পুরো শক্তির দল নিয়ে খেলতে পারি এবং আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি, তবে আমরা আশা করি ম্যাচটি জিততে পারবো। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে যে কোন দলের ভালভাবে প্রস্তুত হবার সুযোগ কম। ফরম্যাট অনুযায়ী আপনাকে মানসিকতায় পরিবর্তন আনতে এবং মানিয়ে নিতে  হবে।’
কঠোর জৈব-সুরক্ষা পরিবেশে সিরিজটি অনুষ্ঠিত হবে। এত স্বাস্থ্য ঝুঁকি কম থাকবে। সিরিজের সবগুলো ম্যাচ হবে হারারে স্পোর্টস ক্লাবে মাঠে। 
যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের সাথে ছুটি কাটানো তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান সেখান থেকে জিম্বাবুয়েতে দলের সাথে যোগ দিবেন। 
জিম্বাবুয়ে সফরের আগে মানসিকভাবে চাঙ্গা থাকতে   বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) সুপার পর্বে মোহামেডানের হয়ে খেলেননি সাকিব। 
নতুন স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথ ও ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্স কাতারে বাংলাদেশ দলের সাথে যোগ দিবেন। কাতারে জাতীয় দলের ট্রানজিট রয়েছে। 
দুই দিনের অনুশীলন ম্যাচ দিয়ে জিম্বাবুয়ে সফর শুরু করবে বাংলাদেশ। যা অনুষ্ঠিত হবে ৩ ৪ জুলাই। 
একমাত্র টেস্ট ম্যাচ শুরু হবে ৭ জুলাই। ১৬ জুলাই থেকে শুরু হবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। পরের দু’টি ওয়ানডে ম্যাচ ১৮ ও ২০ জুলাই। ওয়ানডে শেষে তিন ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। ২৩, ২৫ ও ২৭ জুলাই হবে টি-টুয়েন্টি সিরিজের ম্যাচ।
টেস্ট দল : মোমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সাদমান ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন কুমার দাস, ইয়াসির আলী চৌধুরী, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহি, তাসকিন আহমেদ, ইবাদত হোসেন চৌধুরী, শরিফুল ইসলাম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।
ওয়ানডে দল : তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, লিটন কুমার দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মোহাম্মদ মিথুন, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, সাইফ উদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন ও শরিফুল ইসলাম।
টি-টুয়েন্টি দল : মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, নাঈম শেখ, লিটন কুমার দাস, সাকিব আল হাসান, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন, শামীম হোসেন পাটোয়ারি, নুরুল হাসান সোহান, নাসুম আহমেদ, শেখ মাহেদি হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, মোহাম্মদ সাইফুউদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

আবারো কোপার পিচ নিয়ে অভিযোগ জানালেন নেইমার

আন্তর্জাতিক ফুটবলে গোলদাতাদের তালিকার শীর্ষ দশে মেসি