ভিতরে

সিলেট বিভাগে একদিনে করোনায় আক্রান্ত আড়াই গুণ বেড়েছে

সিলেট বিভাগে গত একদিনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় আড়াই গুন বেড়েছে।
সোমবার স্বাস্থ্য অধিদফতর সিলেট বিভাগীয় কার্যালয় কোভিড-১৯ বিষয়ক দৈনিক প্রতিবেদনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। এতে উল্লেখ করা হয় সোমবার সকাল ৮ টা পর্যন্ত গত একদিনে সিলেট বিভাগে করোনাভাইরাসে নতুন আক্রান্ত হয়েছেন আরও ২৩৪ জন, যা আগের দিন আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ৯৯ জন। তবে গত একদিন করোনায় সিলেট বিভাগে কারো মৃত্যু হয়নি। একই সময়ে করোনা থেকে সুস্থ্য হয়েছেন ১০৯ জন। স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য মতে গত একদিনে করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হওয়া ২৩৪ জনের মধ্যে সিলেট জেলায় সর্বোচ্চ সংখ্যক ১৫৩ জন, সুনামগঞ্জে ৯, হবিগঞ্জে ২৫ ও মৌলভীবাজার জেলার ৪৭ জন রয়েছেন। এনিয়ে সিলেট বিভাগে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ হাজার ২৬২ জন। এরমধ্যে সিলেট জেলায় ১৬ হাজার ৭১৯, সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৯৫২, হবিগঞ্জে ২ হাজার ৬৬৬ ও মৌলভীবাজার জেলায় ২ হাজার ৯২৫ জন রয়েছেন। এদিকে গত একদিনে করোনা থেকে নতুন করে সুস্থ্য হয়ে উঠা ১০৯ জনের মধ্যে সিলেট জেলায় ৭২, সুনামগঞ্জে ৮,হবিগঞ্জে ১ ও মৌলভীবাজার জেলায় ২৮ জন রয়েছেন। এ পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনায় আক্রান্ত থেকে মোট সুস্থ্য হয়েছেন ২৩ হাজার ৩৮২ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলার ১৫ হাজার ৮৪৮ সুনামগঞ্জের ২ হাজার ৮১৭, হবিগঞ্জের ২ হাজার ১১০ ও মৌলভীবাজার জেলার ২ হাজার ৬০৭ জন রয়েছেন। গতকাল সিলেট বিভাগে করোনায় কারো মৃত্য হয়নি। এ পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট মৃত্যবরন করেছেন ৪৬৭ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলার ৩৮১, সুনামগঞ্জের ৩২, হবিগঞ্জের ১৯ ও মৌলভীবাজার জেলার ৩৫ জন রয়েছেন। 
অন্যদিকে সিলেট বিভাগের চার জেলায় গত একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন আরও ২৫ জন। 
অপরদিকে গত একদিনে সিলেট বিভাগে আরও ১১২ জনকে নতুন করে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে,যা আগের দিন ছিলো মাত্র ৪০ জন। গত একদিনে হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা প্রায় তিনগুণের কাছাকাছিতে পৌছে গেছে। গত একদিনে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে সিলেট জেলার ১০৭ ও মৌলভীবাজার জেলার ৫ জন। এ নিয়ে বর্তমানে সিলেট বিভাগে বর্তমানে মোট হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫৭৫ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলার ৫২৬ ও মৌলভীবাজার জেলার ৪৯ জন।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশের ৩৩ টিম মাঠে

আয়বর্ধক প্রকল্পে চসিকের সক্ষমতা পুনরুদ্ধার করা হবে : মেয়র