ভিতরে

অতিরিক্ত সময়ের দুই গোলে অস্ট্রিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ইতালি

দুই বদলী খেলোয়াড় ফেডেরিকো চিয়েসা ও মাত্তেও পেসিনার অতিরিক্ত সময়ের দুই গোলে অস্ট্রিয়াকে ২-১ ব্যবধানে পরাজিত করে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছে ফেবারিট ইতালি।
লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা গোলশুন্য ড্র হবার পর ম্যাচটি গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। প্রথমার্ধে আজ্জুরিরা দাপট দেখালেও দ্বিতীয়ার্ধে রবার্তো মানচিনির দলকে স্বস্তিতে থাকতে দেয়নি অস্ট্রিয়া। ৯৫ মিনিটে চিয়েসার গোলে স্বস্তি ফিরে আসে ইতালি শিবিরে। এরপর ১০৫ মিনিটে পেসিনার গোলে দলের জয় নিশ্চিত হয়। রোমে গ্রুপ পর্বের তিনটি ম্যাচেই জয়ী হয়ে গ্রুপ-এ‘র শীর্ষ দল হিসেবে দাপটের সাথে শেষ ১৬‘তে খেলতে আসা ইতালি ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মত নিজেদের সঠিক পথেই এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। 
গ্রুপের শেষ ম্যাচে ওয়েলসকে হারানোর দলটি থেকে সাতটি পরিবর্তন করে কাল মূল একাদশ সাজিয়েছিলেন ইতালীয় বস মানচিনি। মধ্যমাঠে ম্যানুয়েল লোকাতেল্লির স্থানে খেলতে নেমেছিলেন মার্কো ভেরাত্তি। উরুর ইনজুরির কারনে দলের আবারো বাইরে ছিলেন গিওর্গিও চিয়েলিনি। লন্ডনে আসা বিশাল একদল ইতালিয়ান সমর্থকের সড়ব উপস্থিতিতে ম্যাচের শুরুটাও দারুনভাবেই করেছিল ইতালি। লেফট-ব্যাক থেকে লিওনার্দো স্টিনাজ্জোলা বারবার প্রতিপক্ষের জন্য বিপদজনক হয়ে উঠছিলেন। প্রথম সুযোগটিও তিনিই তৈরী করেছিলেন। তবে তার শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে পোস্টের বাইরে চলে যায়। পরমুহূর্তে ভেরাত্তির কাছ থেকে বল পেয়ে বাম দিক থেকে আক্রমন চালান লোরেঞ্জো ইনসিগনে। কিন্তু তার কার্লিং শট অস্ট্রিয়ান গোলরক্ষক ড্যানিয়েল বাখমান সহজেই রুখে দেন। স্পিনাজ্জোলার ক্রস থেকে নিকোলো বারেলার শট কোনমতে পা দিয়ে আটকে দেন বাখমান। কাউন্টার এ্যাটাকর থেকে অস্ট্রিয়াও আক্রমন চালানোর চেষ্টা করেছে। লিওনার্দো বনুচ্চিকে পাশ কাটিয়ে মার্কো অরনাটোভিচ শট নিলেও তা গোলের ঠিকানা খুঁজে পায়নি। ২০ গজ দুর থেকে ল্যাজিও স্ট্রাইকার সিরো ইমোবিলের শট পোস্টে না লাগলে তখনই হয়ত এগিয়ে যেতে পারতো ইতালি। সব ধরনের পজিশনে আধিপত্য দেখালেও অস্ট্রিয়ানদের পরাস্ত করতে ব্যর্থ হচ্ছিল আজ্জুরিরা।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে মানচিনির দল গোল হজম করা থেকে বেঁচে যান। গিওভান্নি ডি লোরেঞ্জোর অযথাই এক ফাউল থেকে প্রাপ্ত ফ্রি-কিকাট কাজে লাগাতে পারেননি ডেভিড আলাবা। ৬৫ মিনিটে আলাবার হেড থেকে কোনাকুনি হেডে অরনাটোভিচ বল জালে জড়ালেও ওয়েস্ট হ্যামের এই স্ট্রাইকারের গোলটি অফসাইডের কারনে বাতিল করে দেয় ভিএআর। স্টিফান লেইনারকে ফাউলের অপরাধে পেসিনার বিপক্ষে অস্ট্রিয়া পেনাল্টির জোড় আবেদন জানালে এবারও তাদের হতাশ করে ভিএআর প্রযুক্তি। বদলী খেলোয়াড় লোকাতেল্লির চিপ থেকে ডোমেনিকো বেরারডির বাইসাইকেল কিক অল্পের জন্য ইতালিকে এগিয়ে যেতে দেয়নি। নির্ধারিত সময়ে গোলশুন্য ভাবে শেষ হলে ম্যাচটি গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।
তবে অতিরিক্ত সময়ে ফেবারিট ইতালিকে আর বেশীক্ষন অপেক্ষা করতে হয়নি। দুর্দান্ত খেলা স্পিনাজ্জোলার পিন পয়েন্ট পাস থেকে চিয়েসা দারুনভাবে বল নিজের নিয়ন্ত্রনে নিয়ে অতিরিক্ত সময়ের পাঁচ মিনিটের মধ্যে ইতালিকে এগিয়ে দেন। গোল হজম করে অস্ট্রিয়া অনেকটাই ছন্দহীন হয়ে পরে। লেইনারের শট লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি। ১০ মিনিট পর আবারো পেসিনার গোলে ব্যবধান দ্বিগুন হলে ইতালির জয় নিশ্চিত হয়। কিন্তু এরপরেও ম্যাচের নাটকীয়তা কিছুটা বাকি ছিল। ম্যাচ শেষের পাঁচ মিনিট আগে কর্ণার থেকে দারুন এক হেডে সাসা কালাজিক এক গোল পরিশোধ করলেও তা অস্ট্রিয়ার হার আটকাতে পারেনি।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

‘লকডাউন বাস্তবায়নে ৬১ লাখ আনসার প্রস্তুত রয়েছে’

ডোলবার্গের দুই গোলে ওয়েলসকে উড়িয়ে দিয়ে শেষ আটে ডেনমার্ক