ভিতরে

৪টি দপ্তর-সংস্থার সাথে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষরিত

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং মন্ত্রণালয়াধীন চারটি দপ্তর – সংস্থা প্রধানদের মধ্যে ২০২১-২২ অর্থ বছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষরিত হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার এই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। 
প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন, ‘২০২১- ২০২২ অর্থ বছরের কার্যক্রম দক্ষতা ও সফলতার সাথে সম্পন্ন করার জন্য আজকের এ বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি। এর মাধ্যমে এ মন্ত্রণালয়ের প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতা, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন নিশ্চিত হবে। এভাবেই ২০৪১ সালের উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে।’
সভাপতির বক্তব্যে সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম বলেন, ‘বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির সফলভাবে সম্পন্ন হলে মন্ত্রণালয়ের পাঁচটি কৌশলগত লক্ষ্য অর্জিত হবে। এরফলে নিজেদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ে আমাদের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা অর্জন সম্ভব হবে।’ 
উপসচিব মোসা. ফেরদৌসী বেগমের উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য দেন মন্ত্রণালয়ের এপিএ টিমের প্রধান অতিরিক্ত সচিব ফরিদা পারভীন। দপ্তর সংস্থার পক্ষে বক্তব্য রাখেন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (গ্রেড-১) রাম চন্দ্র দাস। 
মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের পক্ষে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষর করেন মহাপরিচালক (গ্রেড-১) রাম চন্দ্র দাস, বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর মহাপরিচালক জ্যোতি লাল কুরি, জয়িতা ফাউন্ডেশনের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক আফরোজা খান এবং জাতীয় মহিলা সংস্থার পক্ষে নির্বাহী পরিচালক  মাকসূরা নূর এনডিসি।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

দেশে খাদ্যের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে : খাদ্যমন্ত্রী

গাছ না কেটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে : মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী