ভিতরে

মিরানচুকের একমাত্র গোলে প্রথম জয় তুলে নিল রাশিয়া

আটালান্টা স্ট্রাইকার এ্যালেকসেই মিরানচুকের একমাত্র গোলে ফিনল্যান্ডকে বুধবার ১-০ গোলে পরাজিত করে ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপে প্রথম জয় তুলে নিয়েছে রাশিয়া। সেন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামে প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে জয়সূচক গোলটি করেন আটালান্টার ২৫ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার। প্রতিবেশী দেশটির বিপক্ষে জয় নিশ্চিত করতে মিরানচুকের এই এক গোলই যথেষ্ট ছিল।
তবে জয়ের আনন্দ ছাপিয়ে ডিফেন্ডার মারিও ফার্নান্দেসের ইনজুরি রাশিয়ান দলটিকে দু:শ্চিন্তায় ফেলেছে। প্রথম ম্যাচে বেলজিয়ামের কাছে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হবার পর কালকের এই জয়ে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে এসেছে রাশিয়ান শিবিরে। এবারের আসরে যে নয়টি দল নিজ মাঠে খেলার সুবিধা পাচ্ছে তার মধ্যে রাশিয়াও একটি।
বৈশ্বিক বড় কোন টুর্নামেন্টে এবারই প্রথমবারের মত খেলতে এসেছে ফিনল্যান্ড। শনিবার কোপেনহেগেনে গ্রুপের প্রথম ম্যাচে তারা ডেনমার্ককে ১-০ গোলে পরাজিত করে শুভ সূচনা করেছিল। যদিও ড্যানিশ তারকা ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের অসুস্থতায় ম্যাচটিতে তাদের অভিষেকের জয়ের আনন্দকে রাঙিয়ে দিতে পারেনি।
প্রথমার্ধের ২৬ মিনিটে ফিনল্যান্ডের বক্সে একটি হাই বলকে ধরতে গিয়ে বাজেভাবে মাটিতে পড়ে যান সিএসকেএ মস্কোর ব্রাজিলিয়ান বংশোদ্ভূত রাইট-ব্যাক ফার্নান্দেস। এসময় তিনি ঘাড়ে ও গলায় আঘাত পেয়েছেন বলে জানা গেছে। পরে তাকে স্ট্রেচারে করে মাঠের বাইরে নিয়ে যাবার পর তাৎক্ষনিকভাবে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রাশিয়ান দল টুইটারে জানিয়েছে হাসপাতালে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে, ধারনা করা হয়েছিল তার স্পাইনালে ইনজুরি হয়েছে। তবে পরবর্তীতে জাতীয় দলের পক্ষ থেকে এ ধরনের কোন ইনজুরি ধরা পড়েনি বলে নিশ্চিত করা হয়েছে।
ফার্নান্দেসের পরিবর্তে মাঠে নামানো হয় জেনিতের ডিফেন্ডার ভিয়াচেস্লাভ কারাভায়েভকে। দলের অন্যতম নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডারকে ছাড়াও রাশিয়া জয়ের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে দ্বিতীয় মিনিটে অধিনায়ক আরটেম ডিজুইবার এসিস্টে বাম পায়ের কোনাকুনি শটে বল জালে জড়ালে এগিয়ে যায় রাশিয়া।
২০১৮ সালের কোয়ার্টার ফাইনালিস্টদের জয় নিশ্চিত করতে ঐ এক গোলই যথেষ্ট ছিল। অথচ ম্যাচের ভাগ্য ভিন্ন হতে পারতো। তিন মিনিটের মধ্যে জুকা রাইতালার ক্রস থেকে জোয়েল পোহানপালোর হেডে সমতায় ফিরেছিল ফিনল্যান্ড। কিন্তু ভিএআর প্রযুক্তিতে দেখা গেছে ডেনমার্কের বিপক্ষে জয়সূচক গোল করা বায়ার লেভারকুসেনের এই খেলোয়াড় অল্পের জন্য অফসাইড পজিশনে ছিলেন।
ম্যাচের শেষ ভাগে বেশ কিছু সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেনি রাশিয়া। তবে ব্যবধান না বাড়ানোর পিছনে ফিনল্যান্ডের গোলরক্ষক লুকাস রাডেকিকেও দায়ী করা যেতে পারে।
আগামী সোমবার গ্রুপের শেষ ম্যাচে ডেনমার্কের মোকাবেলা করবে রাশিয়া। অন্যদিকে সেন্ট পিটার্সবার্গে বেলজিয়ামের মোকাবেলা করবে ফিনল্যান্ড।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

বেলের পেনাল্টি মিসের দিনেও তুরষ্ককে ২-০ গোলে পরাজিত করেছে ওয়েলস

রিয়াল ছাড়ছেন রামোস