ভিতরে

অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে : ডিএনসিসি মেয়র

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে ডিএনসিসি কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কোন কাউন্সিলরও যদি অবৈধ দখলের সাথে জড়িত থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধেও কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
আজ কল্যাণপুর স্টর্ম ওয়াটার পাম্প এরিয়ায় চলমান উন্নয়নমূলক কার্যক্রম পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।
আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরীর জলাবদ্ধতার সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কাজ করে যাচ্ছে। জলাবদ্ধতার সমস্যা সমাধানে পরিকল্পিত জলাধার খুবই প্রয়োজন। এজন্য প্রয়োজনীয় জমিও অধিগ্রহণ করা হয়েছে। কিন্তু অধিগ্রহণকৃত জমির উল্লেখযোগ্য অংশই অবৈধ দখলদারদের দখলে রয়েছে।
অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে তিনি বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যেই তাদেরকে দখল ছাড়তে হবে অন্যথায় বিনা নোটিশে অভিযান পরিচালনা করা হবে এবং অবৈধ স্থাপনাগুলো ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়া হবে।
মেয়র বলেন, অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে এখনই সকলকে সোচ্চার হতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় অবৈধ দখলে থাকা সরকারি জমিগুলো উদ্ধার করে সেগুলোর যথাযথ ব্যাবহার নিশ্চিত করা হবে।
ওয়াসা থেকে বুঝে খালগুলোর সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, খালগুলো যখন ওয়াসার ব্যবস্থাপনায় ছিল তখন সেগুলো সঠিকভাবে পরিস্কার এবং রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়নি। ইতোমধ্যে ডিএনসিসি বিভিন্ন জায়গায় খাল উদ্ধার ও পরিস্কার কার্যক্রম শুরু করেছে যা চলমান রয়েছে।
এদিকে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের জন্য মানসম্পন্ন আবাসনের লক্ষ্যে নির্মাণাধীন ‘গাবতলী পরিচ্ছন্ন কর্মী নিবাস’ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের আতিকুল ইসলাম বলেন, নিজের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের জন্য মানসম্পন্ন আবাসনের ব্যবস্থা করা সম্ভব হচ্ছে।
তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের সকল পরিবারের জন্যই মানসম্পন্ন আবাসনের সুব্যবস্থা করা হবে।
মেয়র জানান, ২২১ কোটি টাকা ব্যায়ে ‘গাবতলী পরিচ্ছন্ন কর্মী নিবাস’ এ ১৫তলা বিশিষ্ট চারটি ভবন ছাড়াও ৪তলা বিশিষ্ট একটি স্কুল ভবনও নির্মাণ করা হচ্ছে। এখানে টয়লেট, রান্নাঘর ও বারান্দাসহ থাকার কক্ষ সম্বলিত ৭৮৪টি ফ্ল্যাটের প্রত্যেকটিতে একটি করে পরিবারের আবাসনের সুব্যবস্থা থাকবে।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

থাইল্যান্ডে নবনিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের পরিচয়পত্র পেশ

জাতিসংঘের মাদকদ্রব্য কমিশন, ইউনিসেফ ও ইউএন উইমেন এর নির্বাহী বোর্ডে নির্বাচিত হল বাংলাদেশ