ভিতরে

শামীমের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে জিতলো বাংলাদেশ

ইনিংসের শেষদিকে শামীম হোসেনের ৩৯ বলে অপরাজিত ৫৩ রানের উপর ভর করে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলকে ৪ উইকেটে হারালো বাংলাদেশ ইমার্জিং দল। ফলে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ।
প্রথম ওয়ানডেতে আয়ারল্যান্ডের রুহান প্রিটোরিয়াসের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ হওয়ায়, ৩০ ওভার পরই ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়েছিলো।
দ্বিতীয় ম্যাচের আগে প্রিটোরিয়াসের ও দু’দলের সকলের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। ফলে প্রিটোরিয়াসকে নিয়েই একাদশ সাজায় আয়ারল্যান্ড।
চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে বোলিং করতে নামে বাংলাদেশ। আয়ারল্যান্ডের পক্ষে ইনিংস শুরু করেন জেমস ম্যাককোলাম ও প্রিটোরিয়াস। ম্যাককোলাম ৪১ রানে থামলেও, হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন প্রিটোরিয়াস।
হাফ-সেঞ্চুরির পর নিজের ইনিংস বড় করছিলেন প্রিটোরিয়াস। কিন্তু ব্যক্তিগত ৯০ রানে থামতে হয় তাকে। ১২৫ বলে ৯টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন তিনি।
মিডল-অর্ডারে স্টিফেন ডোনি ৩৭, অধিনায়ক হ্যারি টেক্টর ৩১, শেন গেটকাটে ২৯ ও গ্যারেথ ডিলানি ১৮ রান করে। এতে ৭ উইকেটে ২৬৩ রান করে আয়ারল্যান্ড। বাংলাদেশের সুমন খান ও রাকিবুল হাসান ২টি করে উইকেট নেন।
২৬৪ রানের জবাবে ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার অধিনায়ক সাইফ হাসান ও তানজীদ হাসান। তবে দলীয় ৪৪ রানে আউট হন তানজীদ। ১৭ রান করেন তিনি। পরবর্তীতে ৩৬ রানে ফিরেন সাইফ।
তৃতীয় উইকেটে ৭৭ রানের জুটি গড়েন মাহমুদুল হাসান জয় ও ইয়াসির আলি। ইয়াসির ৩১ রানে থামলেও, হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন জয়। ৯৫ বলে ৫টি চারে ৬৬ রান করেন তিনি।
ইয়াসিরের মত ৩১ রান করেছেন তৌহিদ হৃদয়ও। উইকেটরক্ষক আকবর আলি খালি হাতে ফিরলে ম্যাচ নিয়ে বেকাদায় পড়ে বাংলাদেশ। শেষ ৪ ওভারে ৪১ রানের প্রয়োজন পড়ে স্বাগতিকদের। তখন স্বীকৃত ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেটে ছিলেন শামীম। ২৪ বলে ২৩ রান নিয়ে ব্যাট করছিলেন তিনি।
শেষদিকে ঝড়ো গতিতে রান তুলে শেষ ওভারে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করেন শামীম। ৩৯ বলে ৩টি চার ও ২টি ছক্কায় ম্যাচ জয়ী ইনিংসটি সাজান তিনি। ৯ বলে ১১ রানে অপরাজিত থাকেন সুমন খান।
আগামী ৯ মার্চ একই ভেন্যুতে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
আয়ারল্যান্ড ‘এ’ : ২৬৩/৭, ৫০ ওভার (প্রিটোরিয়াস ৯০, ম্যাককোলাম ৪১, রাকিবুল ২/৩৯)।
বাংলাদেশ ইমার্জিং দল : ২৬৪/৬, ৪৯.৪ ওভার (মাহমুদুল হাসান জয় ৬৬, শামীম হোসেন ৫৩*, হোয়াইট ২/৪৫)।
ফল : বাংলাদেশ ইমার্জিং দল ৪ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচ সেরা : শামীম হোসেন (বাংলাদেশ)।
সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

টি-টুয়েন্টি: অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম সিরিজ জয় নিউজিল্যান্ডের

ইন্দোনেশিয়ার পূর্বাঞ্চলে ৫.৮ মাত্রার ভূমিকম্প