ভিতরে

ইংল্যান্ডকে প্রথম দিনই অলআউট করলো ভারতের বোলাররা

সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেস্টের প্রথম দিনই সফরকারী ইংল্যান্ডকে ২০৫ রানে অলআউট করে দিলো ভারতের বোলাররা। জবাবে প্রথম দিন শেষে ১ উইকেটে ২৪ রান করেছে ভারত। ৯ উইকেট হাতে নিয়ে এখনো ১৮১ রানে পিছিয়ে টিম ইন্ডিয়া।
আজ আহমেদাবাদে টস ভাগ্যে জয় পায় ইংল্যান্ড। এ ম্যাচে টস করতে নেমে ভারতের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্টে নেতৃত্ব দেয়া মহেন্দ্র সিং ধোনিকে স্পর্শ করেন বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এখন ধোনি-কোহলি, দু’জনই ভারতকে ৬০ ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন।
১২ ঘন্টায় আগের ম্যাচ হারের দুঃস্মৃতি নিয়ে ব্যাটিং শুরু করেছিলো ইংল্যান্ড। ৫ ওভার পর্যন্ত কোন বিপদ হয়নি ইংলিশদের উদ্বোধনী জুটিতে। ষষ্ঠ ওভারে প্রথমবারের মত বল করতে এসেই ভারতকে সাফল্য এনে দেন আগের ম্যাচের হিরো বাঁ-হাতি স্পিনার অক্ষর প্যাটেল। ২ রান করা ওপেনার ডম সিবলিকে বোল্ড করেন প্যাটেল।
পরের ওভারেও সাফল্য পান প্যাটেল। এবার আরেক ওপেনার জ্যাক ক্রলির বিদায় নিশ্চিত করেন তিনি। ৯ রান করে ক্রলি। ফলে ১৫ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়ে ইংল্যান্ড।
সেই চাপ আরও বাড়িয়ে দেন ভারতের পেসার মোহাম্মদ সিরাজ। প্রতিপক্ষের অধিনায়ক জো রুটকে ৫ রানে থামান সিরাজ।
৩০ রানে রুটের বিদায়ের পর দলকে খেলায় ফেরানোর চেষ্টা করেছিলেন জনি বেয়ারস্টো ও বেন স্টোকস। উইকেটে সেট হয়ে যাওয়া বেয়ারস্টোকে ২৮ রানে থামিয়ে দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন সিরাজ। বেয়ারস্টোর সাথে ৪৮ রান যোগ করেন স্টোকস।
ছয় নম্বরে নামা ওলি পোপের সাথে ৪৩ রানের জুটি গড়ে থামেন স্টোকস। টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৪তম হাফ-সেঞ্চুরি পাওয়া স্টোকসকে ৫৫ রানের বেশি করতে দেননি ভারতের স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর। ১২১ বল খেলে ৬টি চার ও ২টি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান স্টোকস।
দলীয় ১২১ রানে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন স্টোকস। এ অবস্থায় দলের হাল ধরে বড় জুটির পথে ছিলেন পোপ ও ড্যান লরেন্স। কিন্তু এই জুটিকেও হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ পেতে দেয়নি ভারতের বোলাররা। ২৯ রানে পোপকে থামিয়ে ইনিংসে নিজের প্রথম শিকার করেন ভারতের আরেক স্পিনার রবীচন্দ্রন অশ্বিন। এই জুটি করে ৪৫ রান।
এরপর ইংল্যান্ডের লেজ দ্রুতই ছেঁটে ফেলেন প্যাটেল ও অশ্বিন। ৩৫ রানে শেষ ৪ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। ২০৫ রানে গুটিয়ে যায় তারা। ৭৪ বলে ৪৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন লরেন্স। ভারতের প্যাটেল ৪টি, অশ্বিন ৩টি, সিরাজ ২টি ও সুন্দর ১টি উইকেট নেন।
দিনের শেষদিকে ব্যাট হাতে নেমে তৃতীয় বলেই শুভমান গিলকে হারায় ভারত। ইংল্যান্ডের পেসার জেমস এন্ডারসনের বলে লেগ বিফোর হয়ে খালি হাতে ফিরেন গিল। এরপর আর কোন বিপদ হতে দেননি আরেক ওপেনার রোহিত শর্মা ও চেতেশ্বর পূজারা। রোহিত ৮ ও পূজারা ১৫ রানে অপরাজিত থাকেন। ৫ ওভার বল করে কোন রান না দিয়ে ১ উইকেট নিয়েছেন এন্ডারসন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
ইংল্যান্ড : ২০৫, ৭৫.৫ ওভার (স্টোকস ৫৫, লরেন্স ৪৬, প্যাটেল ৪/৬৮)।
ভারত : ২৪/১, ১২ ওভার (পূজারা ১৫*, রোহিত ৮, এন্ডারসন ১/০)

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

ধোনির রেকর্ড স্পর্শ করলেন কোহলি

চাপের মুখে ভাইরাস প্রতিরোধে আরোপিত বিধিনিষেধ শিথিল ম্যার্কেলের