ভিতরে

৪ রানে জিতে সিরিজে ডাবল লিড নিউজিল্যান্ডের

উত্তেজনাপূর্ণ দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে সফরকারী অস্ট্রেলিয়াকে ৪ রানে হারালো স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল কিউইরা। প্রথম ম্যাচে ৫৩ রানে জিতেছিলো নিউজিল্যান্ড।
ডানেডিনে টস জিতে প্রথমে নিউজিল্যান্ডকে ব্যাটিংএ পাঠায় অস্ট্রেলিয়া। শুরুটা ভালো না হলেও দ্বিতীয় উইকেটে ৭০ বলে ১৩১ রানের বড় জুটি গড়েন ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। জুটিতে গাপটিল ২৭ বলে সংক্ষিপ্ত ভার্সনে ১৬তম ও উইলিয়ামসন ৩২ বলে ১৩তম অর্ধশতকের দেখা পান।
অর্ধশতকের পর সেঞ্চুরির অপেক্ষায় ছিলেন গাপটিল। তবে ব্যক্তিগত ৯৭ রানে গাপটিলকে থামান অস্ট্রেলিয়ার বাঁ-হাতি পেসার ড্যানিয়েল সামস। ৫০ বলে ৬টি চার ও ৮টি ছক্কা মারেন গাপটিল।
গাপটিলের বিদায়ের পরের ওভারেই ফিরেন উইলিয়ামসন। ২টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৩৫ বলে ৫৩ রনা করেন তিনি।
গাপটিল-উইলিয়ামসনের ব্যাটিং নিউজিল্যান্ডের বড় স্কোরের পথ তৈরি করেছিলো। সেই পথে হেটে দলকে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ২১৯ রানে পৌঁছে দেন জেমস নিশাম। মাত্র ১৬ বলে অপরাজিত ৪৫ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন তিনি। তার ইনিংসে ৬টি ছক্কা ও ১টি চার ছিলো। অস্ট্রেলিয়ার পেসার কেন রিচার্ডসন ৩ উইকেট নেন। ইনিংসে ১৮টি ছক্কা মেরেছেন নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। নিজেদের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে যৌথভাবে এটিই সর্বোচ্চ। ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অকল্যান্ডে ১৮টি ছক্কা কিউই ব্যাটসম্যানরা হাঁিকয়েছিলেন।
সিরিজে সমতা আনতে ২২০ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ব্যাট হাতে জবাব দিতে পারেনি অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা। ১৩ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ১১৩ রান তুলে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে অসিরা। ১৩তম ওভারে অস্ট্রেলিয়ার ৩ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নিউজিল্যান্ডের পক্ষে নেন স্পিনার মিচেল স্যান্টনার।
এ অবস্থাতেও হাল ছাড়েননি পাঁচ নম্বরে নামা মার্কাস স্টয়নিস ও সামস। শেষ ৬ ওভারে জয়ের জন্য ৯৮ রানের সমীকরন ছিলো অসিদের। ১৫তম ওভারে ২০, ১৬তম ওভারে ২৫ ও ১৭তম ওভারে ১৭ রান তুলে জয়ের আশা জাগান স্টয়নিস ও সামস।
শেষ ২ ওভারে ৩০ রানের দরকারে ১৯তম ওভারে ১৫ রান পায় অস্ট্রেলিয়া। নিশামের করা শেষ ওভারে প্রথম বলে আউট হন সামস। পরের দুই বলে রান তুলতে ব্যর্থ হলেও, চতুর্থ ডেলিভারিতে ছক্কা মারেন ২২ বলে হাফ-সেঞ্চুরি করা স্টয়নিস। আর পঞ্চম বলে তিনি আউট হলে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের সুযোগ শেষ হয়ে যায়। ৩৭ বলে ৭টি চার ও ৫টি ছক্কায় ৭৮ রান করেন স্টয়নিস। ১৫ বলে ৪১ রান করেন সামস। ৮ উইকেটে ২১৫ রান করে অসিরা। নিউজিল্যান্ডের স্যান্টনার ৩১ রানে ৪ উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের গাপটিল।
ওয়েলিংটনে আগামী ৩ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টি।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

গ্ল্যাডবাখকে ২-০ গোলে পরাজিত করেছে ম্যান সিটি

লা লিগা: মেসির জোড়া গোলে এলচের বিপক্ষে জয় পেল বার্সেলোনা