ভিতরে

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ: গিরুদের বাইসাইকেল কিকে এ্যাথলেটিকোকে পরাজিত করেছে চেলসি

ফরাসি তারকা অলিভার গিরুদের বাইসাইকেল কিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ১৬’র প্রথম লেগে এ্যাওয়ে ম্যাচে এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে ১-০ গোলে পরাজিত করেছে চেলসি।
এই জয়ে থমাস টাচেলের দল কিছুটা হলেও পরের ম্যাচের আগে সুবিধাজনক অবস্থানে থাকলো। বুখারেস্টের এরিনা ন্যাশনালেতে ৬৮ মিনিটে গিরুদের অসাধারন দক্ষতার গোলটি প্রথমে অফসাইডের কারনে বাতিল করে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু ভিএআর প্রযুক্তি পরবর্তীতে চেলসিকে গোল উপহার দিলে স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্লুজরা। একইসাথে এ্যাথলেটিকোর শেষ আটে খেলার স্বপ্ন কিছুটা হলেও ম্লান হয়ে গেছে।
ম্যাচ শেষে গিরুদ বলেছেন, ‘গোলটি সম্পর্কে আমি আসলে কিছুই চিন্তা করিনি। শুধুমাত্র বলটি মারার দিকেই গুরুত্ব দিয়েছিলাম। আমি সব সময়ই ওভারহেড কিক মারতে পছন্দ করি। বল জালে জড়ানোর পর কিছু সময় বুঝতেই পারিনি কি হচ্ছে। যদিও অফসাইডের বিষয়টি নিয়ে পরে কিছুটা চিন্তিত হয়ে পড়েছিলাম।’
এক গোলে পিছিয়ে পড়ার আগ পর্যন্ত দিয়েগো সিমিওনের দল অনেকটাই রক্ষনাত্মক কৌশলে খেলা চালিয়ে যাচ্ছিল। আগামী ১৭ মার্চ লন্ডনে ফিরতি লেগের ম্যাচে চেলসিকে পিছনে ফেলতে হলে অবশ্য এই কৌশল মোটেই কাজে আসবে না, এটা সহজেই বোধগম্য। গত চার লিগ ম্যাচের মাত্র একটিতে জয়ী হওয়ায় লা লিগার শীর্ষে থাকা সত্বেও সম্প্রতি এ্যাথলেটিকো নিজেদের সাফল্য থেকে বেরিয়ে এসেছে। সিমিওনে বলেছেন, ‘এই ফলাফল মোটেই কাঙ্খিত ছিল না এবং আমাদের আরো বেশী কাজ করতে হবে। একইসাথে লিগের দিকেও মনোযোগী হতে হবে।’
জানুয়ারিতে দলের নতুন কোচ হিসেবে টাচেলের নিয়োগের পর চেলসি এই প্রথম কোন বড় পরীক্ষায় শতভাগ সাফল্য নিয়ে উত্তীর্ণ হলো। ইউরোপের অন্যতম একটি এলিট ক্লাবের বিপক্ষে এগিয়ে যাওয়াটা প্রিমিয়ার লিগেও কাজে আসবে বলে অনেকেই মনে করছেন। গিরুদ বলেছেন, ‘আমরা তাদের শক্তিমত্তা সম্পর্কে জানি এবং সেভাবেই তাদের সাথে লড়াই করেছি। আমাদের এখন নিজেদের ফর্মের প্রতি মনোযোগী হতে হবে এবং লক্ষ্যপূরনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।’
সিমিওনের অধীনে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নক আউট পর্বে ঘরের মাঠে ১৪ ম্যাচে এনিয়ে মাত্র তৃতীয় গোল হজম করলো এ্যাথলেটিকো। যদিও করোনাভাইরানের কারনে ভ্রমন নিষেধাজ্ঞা থাকায় ম্যাচটি স্পেনে না হয়ে বুখারেস্টে অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগামী মাসে স্ট্যামফোর্ড ব্রীজের ম্যাচটি অবশ্য এখনো নির্ধারিত সূচী অনুযায়ী বহাল রয়েছে। টাচেল অবশ্য স্বীকার করেছেন স্পেনে ম্যাচটি না হবার পূর্ণ সুবিধা তারা ভোগ করেছে। যদিও সিমিওনে এনিয়ে কোন অভিযোগ তুলেননি। বরং তিনি বলেছেন এই পরিস্থিতিতে যেকোন ভেন্যুতে খেলার জন্য তার দলকে সবসময় প্রস্তুত থাকতে হবে।
এবারের ইউরোপীয়ান আসরে স্প্যানিশ ক্লাবগুলো নিজেদের নামের প্রতি মোটেই সুবিচার করতে পারছে না। এ নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ১৬’তে প্রথম লেগে তিনটি স্প্যানিশ দল পরাজয়ের শিকার হয়েছে। এ্যাথলেটিকোর আগে গত সপ্তাহে পিএসজির কাছে বার্সেলোনা বিধ্বস্ত হবার পর বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের কাছে পরাজিত হয়েছে সেভিয়া।
শনিবার প্রিমিয়ার লিগে সাউদাম্পটনের বিপক্ষে ২০ বছর বয়সী কালুম হাডসন-ওডুইয়ের পারফরমেন্স নিয়ে সমালোচনা করা সত্তেও টাচেল কাল মূল একাদশে আক্রমনভাগে তার উপরই আস্থা রেখেছিলেন। অন্যদিকে এ্যাথলেটিকোর মূল একাদশে ছিলেন লুইস সুয়ারেজ, হুয়াও ফেলিক্স ও এ্যাঞ্জেল কোরেয়া। কিন্তু এই আক্রমনভাগ পুরো ম্যাচে কার্যত রক্ষনভাগকে সহায়তা করতেই ব্যস্ত ছিল। প্রথমার্ধটা উভয় দলের জন্যই বেশ কঠিন ছিল। কোন দলই গোলের তেমন কোন ভাল সুযোগ সৃষ্টি করতে পারেনি। প্রথমার্ধের শুরুতে সাওল নিগুয়েজের শট কোনমতে আটকে দেন চেলসি গোলরক্ষক এডুয়ার্ড মেন্ডি। অন্যদিকে টিমো ওয়ার্নারের শট রক্ষা করেন এ্যাথলেটিকো গোলরক্ষক ইয়ান ওবলাক। পোস্টের খুব কাছে থেকে বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হন সুয়ারেজ। মার্কোস আলোনসো, হাডসন-ওডুই অল্পের জন্য গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেন।
দ্বিতীয়ার্ধে ফেলিক্স ও থমাস লেমার এ্যাথলেটিকোকে সুখবর দিতে পারেননি। ম্যাচটি যখন নিষ্প্রান ড্রয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল তখনই গিরুদ ম্যাচে প্রাণ ফেরান। বামদিন থেকে আলোনসোর ক্রসে গিরুদ অসাধারণ বাইসাইকেল কিকে চেলসিকে এগিয়ে দেন। গোলটি অফসাইড মনে হলেও ভিএআর এ্যাথলেটিকোর হারমোসোর পজিশন বিবেচনায় গোলের সিদ্ধান্তে অটল থাকে।

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ: ল্যাজিওকে উড়িয়ে দিয়ে শেষ আট অনেকটাই নিশ্চিত করে রাখলো বায়ার্ন

আইপিএলে খেলতে মুখিয়ে আছেন স্মিথ