ভিতরে

সাকিবের অনুপস্থিতিতে স্পিনারদেরকেই দায়িত্ব নিতে হবে : মিরাজ

সুত্র ও ছবিঃ বাসস

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হার এড়াতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে জয় লাভের লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবে স্বাগতিক বাংলাদেশ। আর এ জন্য সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে স্পিনারদেরকেই দায়িত্ব নিতে হবে বলে মনে করেন বাংলাদেশ দলের অল রাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ।
উরুর ইনজুরিতে পড়ে সিরিজের শেষ টেস্ট থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন সাকিব। ১১ ফেব্রুয়ারি মিরপুরের শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হবে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচ।
চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনেই সাকিবের ইনজুরিটা পুনরায় দেখা দেয়। যে কারণে ম্যাচটি আর শেষ করা হয়নি বিশ^ বরেন্য অল রাউন্ডারের। বোলিং ব্যর্থতার ওই ম্যাচে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে তিন উইকেটে পরাজিত হয় টাইগাররা। ৩৯৫ রানের বিশাল টার্গেট তাড়া করে ম্যাচ জিতে নেয় সফরকারীরা।
ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে ৬৮ রান সংগ্রহ করেছিলেন সাকিব। পরে ছয় ওভার বল করেন তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে মাঠেই নামতে পারেননি সাকিব। তার অনুপুস্থিতিও ম্যাচ হারের অন্যতম কারণ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।
মিরাজ বলেন, সাকিবের ঘাটতি পুরণ করা সহজ হবে না। তাই বাড়তি দায়িত্ব পালনে জোড় দিতে হবে। তিনি বলেন,‘ সাকিব ভাইয়ের ইনজুরিটা ম্যাচে দারুন প্রভাব ফেলেছে। কারণ তার বোলিং ও নির্দেশনা, দুটিই ছিল গুরুত্বপুর্ন।
সেখানে সাকিব থাকলে আমরা পঞ্চম দিনে হয়তো ঘুরে দাঁড়াতে পারতাম। কারণ তখন হয়তো তিনি আমাদেরকে গুরুত্বপুর্ন পরামর্শ দিতে পারতেন। তার বোলিংও বাড়তি প্রভাব ফেলতো। কিন্তু ইনজুরির কারণে আমরা অপ্রত্যাশিত ভাবে সাকিবকে পাইনি। ’
মিরাজ বলেন,‘ সাকিব আল হাসান থাকলে ঢাকায় আসন্ন দ্বিতীয় টেস্টে আমরা আত্মবিশ^াস পেতাম। কিন্তু এখানেও তাকে পাচ্ছি না। আমরা, স্পিনারদেরকেই এখন বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে। আমাদেরকে ভাল ও সঠিক স্থানে বল করতে হবে। যেমনটি প্রথম টেস্টে হয়নি।’
প্রথম টেস্টের ভুল গুলো চিহ্নিত করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মিরাজ। তাদের পরিকল্পনা দ্বিতীয় টেস্টে সেগুলো শুধরে নেয়া। মিরাজ বলেন,‘ প্রথম টেস্টের পঞ্চম দিনে আমরা কিছুটা অসম বাউন্স আশা করেছিলাম। কিন্তু পিচ থেকে সেটি পাওয়া যায়নি। পিচে কিছুটা রুক্ষতাও ছিল। আমরা সেখানেই বল ফেলেছিলাম। তবে সেটিও আমাদের ভুল ছিল। কারণ আমরা কিছুটা শট লেন্থে বল করেছিলাম। যা তাদেরকে চাপমুক্ত করেছে।
আমরা তাদের (উইন্ডিজ) ভুল নিয়েও আলোচনা করেছি। আশা করি দ্বিতীয় টেস্টেও তারা ওই ভুল করবে। আমরা আঁটশাট লেন্থে সঠিক স্থানে বল ফেলার চেস্টা করব।’
ব্যক্তিগত দিক থেকে প্রখম টেস্টটি ছিল মিরাজের জন্য দারুন একটি ম্যাচ। প্রথম ইনিংসে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির পাশাপাশি আট উইকেট দখল করেছেন তিনি। কিন্তু ম্যাচে হেরে যাওয়ায় এসব নিয়ে খুশি থাকতে পারনেনি মিরাজ। তিনি বলেন,‘ আমার দল যদি ম্যাচে জয়লাভ করতো, তাহলে আমি হয়তো এই পারফর্মেন্সের স্বাদ অনুভব করতে পারতাম। ব্যক্তিগত অর্জনের দিক থেকে এটি হযতো আমার ক্যারিয়ারে ভাল একটি টেস্ট ম্যাচ। কিন্তু নিজ দল হেরে গেলে কেউই ওই অর্জন উপভোগ করতে পারে না। আশা করি (আগামীতে) আরো ভাল খেলা দিয়ে দলের জন্য অবদান রাখতে পারব।’

আপনি কি মনে করেন?

0 টি পয়েন্ট
উপনোট ডাউনভোট
উত্তর দিন

মন্তব্য করুন

অক্সফোর্ডের টিকা বাতিল না করার আহ্বান ডব্লিওএইচও’র

করোনার চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বিমসটেকভুক্ত দেশগুলোকে একযোগে কাজ করার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর